৬ মাস পর খুলে দেয়া হচ্ছে ইতালির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

দীর্ঘ ৬ মাস বন্ধ থাকার পর ইতালিতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসায় খুলে দেওয়া হচ্ছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দেশটিতে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে স্কুল খুলে দেওয়া হলেও সামাজিক দূরত্ব অবশ্যই মেনে চলতে হবে।

ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে এবং শিক্ষামন্ত্রী লুসিয়া অ্যাজোলিনা এক ঘোষণায় স্কুল খুলে দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন ধরেই সেখানকার সব স্কুল বন্ধ রাখা হয়।

প্রধানমন্ত্রী কন্তে জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বরে নিরাপদে স্কুলগুলো পুনরায় চালু করতে সরকার অতিরিক্ত ১ বিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ দিয়েছে সরকার।

শিক্ষামন্ত্রী অ্যাজোলিনা বলেন, ‘এই অর্থ শুধুমাত্র করোনাভাইরাসকে মোকাবিলা করতে নয়, বরং আমরা ভিন্ন আঙ্গিকের স্কুল নিয়ে স্বপ্ন দেখছি, যেখানে উন্নয়নের জন্য অর্থ ব্যয় হবে।’

করোনায় বিপর্যস্ত ইতালির অর্থনীতির পুনর্গঠনে ১৭২ মিলিয়ন ইউরো অর্থ সহায়তা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। পরিস্থিতি সামাল দিতে এই অর্থ সহায়তা যথেষ্ট নয় বলে মনে করে ইতালি।

সম্প্রতি করোনাভাইরাস শনাক্তে চালু হওয়া ইম্মনি অ্যাপ সবাইকে ডাউনলোড করার আহ্বান জানান ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে। তিনি বলেন, এই অ্যাপ করোনায় আক্রান্ত রোগী এবং তার সংস্পর্শে থেকেছে এমন ব্যক্তিকে শনাক্ত করতে সক্ষম। অ্যাপের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না।

এদিকে, করোনার কারণে ইতালির সঙ্গে বাংলাদেশ বিমানের যোগাযোগ বন্ধ থাকায় অনেকে প্রবাসী বাংলাদেশি এখনো ইতালি ফিরে যেতে পারিনি। যে কারণে অনেকেই কাজ হারিয়েছেন। শুধু তাই নয়, প্রবাসী বাংলাদেশিরা দুই-তিনবার টিকেট কিনেও যেতে পারিনি। দুবার টিকেট কিনেও ইতালি ফিরতে না পারায় আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!