৩ লক্ষ টাকার ‘সোনার মাস্ক’ পরে আলোচনায় ভারতীয়

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া নতুন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সাধারণত সার্জিক্যাল বা গেঞ্জি কাপড়ে স্থানীয়ভাবে তৈরি মাস্ক নিয়েই হুলুস্থুল চলছে। এতে নতুনত্ব নিয়ে এলেন এক ভারতীয়। দেশটির পুনের এই বাসিন্দা ব্যবহার করছেন সোনার তৈরি মাস্ক। এক মাস্কের দামই প্রায় তিন লাখ রুপি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির মহারাষ্ট্রের পুনে জেলার বাসিন্দা শংকর কুরাদে পরছেন সাড়ে ৫ পাউন্ড সোনার তৈরি মাস্ক। শংকরকে এই মাস্কের জন্য গুনতে হয়েছে দুই লাখ ৮৯ হাজার রুপি।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, শংকর কুরাদে শৈশব থেকেই সোনার অলংকার পরতে পছন্দ করেন। তিনি হাতের সব কটি আঙুলে সোনার তৈরি আংটি পরেন। তাঁর কবজিতে থাকে চওড়া ব্রেসলেট ও গলায় থাকে সোনার অলংকার।

শংকর কুরাদে বলেন, সোনার তৈরি মাস্ক পরার শখ তাঁর জেগেছে একটি ভিডিওচিত্র দেখে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিওতে এক ব্যক্তিকে রুপার তৈরি মাস্ক পরতে দেখেছিলেন তিনি। এরপর শংকর এক স্বর্ণকারের সঙ্গে কথা বলেন। ওই স্বর্ণকার তাঁকে এক সপ্তাহের মধ্যেই মাস্কটি তৈরি করে দেন।

শংকর বলেন, তাঁর মাস্কটি পাতলা ও এতে ছোট ছিদ্র আছে। ফলে তাঁর শ্বাস নিতে কোনো সমস্যা হয় না। তবে এই মাস্কে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ হবে কিনা, সে ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত নন।

শংকর আরও বলেন, তার পরিবারের সদস্যরাও সোনার অলংকার পরতে পছন্দ করেন। তাঁরা চাইলে তিনি তাদের জন্যও সোনার তৈরি মাস্ক এনে দেবেন। এই মাস্ক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কতটা কার্যকর হবে তা জানেন না উল্লেখ করে শংকর কুরাদে বলেন, করোনা প্রতিরোধে সরকারের সব নির্দেশনা মেনে চলেন তিনি ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!