২৪৪ তম শুভ জন্মদিন আমেরিকা ২০২০

২৪৪ বছর আগে যুক্তরাষ্ট্র ছিলো একমাত্র দেশ যারা স্বাধীনতার ঘোষণার পর যুদ্ধ করে তা অর্জন করে। ১৭৭৬ সালের ৪ জুলাই, স্বাধীনতার ঘোষণা দেয় পৃথিবীর ইতিহাতে  গণতন্ত্রের পিতা নামে খ্যাত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মুক্ত হয় সাম্রাজ্যবাদী ব্রিটিশ কলোনিজম হতে।

১৭৭৬ এর ২ জুলাই, নিউইয়র্কে এই ঘোষণাপত্র অনুমোদন করেন আমেরিকান বিপ্লবী বাহিনীর ৩ নেতা জর্জ ওয়াশিংটন, বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন ও জন অ্যাডামস। ৪ জুলাই ওয়াশিংটনে স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়া হয় । একই দিনে পেনসেলভিনিয়া ইভিনিং পোস্ট ও পেনসেলভিনিয়া গ্যাজেটে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়ে দেয়া হয় যুক্তরাষ্ট্র আজ থেকে স্বাধীন। তা আর ব্রিটিশ কলোনি নয়। 

উত্তর আমেরিকার ১৩টি ব্রিটিশ কলোনিকে এই ঘোষণাপত্রে স্বাধীন বলে উল্লেখ করা হয়্। এরপর মার্কিন বিপ্লবীরা  ব্রিটিশ বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হয় । প্রায় ৮ বছরের বেশি রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের পর ব্রিটিশ শাসনমুক্ত হয় উত্তর আমেরিকা।

 স্বাধীনতার এই প্রস্তাবটি এনছিলেন রিচার্ড হেনলি লি। এ কারণে আমেরিকার স্বাধীনতার ঘোষণাকে বলা হয় হেনলি লি রেজ্যুলেশন।

আমেরিকান বিপ্লবে মার্কিনিদের সহায়তা করে ফরাসী আর স্প্যারিশরা। আর ব্রিটিশ পক্ষে ছিলো জার্মান আর স্থানীয় ইন্ডিয়ানরা। জর্জ ওয়াশিংটন কথা দিয়েছিলেন স্বাধীনতা অর্জন করলে যুক্তরাষ্ট্র হবে পৃথিবীর সর্বোচ্চ ব্যক্তি স্বাধীনতার গণতান্ত্রিক দেশ। যে দেশে কোনও রাজা থাকবে না। এরপর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হচ্ছেন ইলোক্টরাল কলেজ দ্বারা। যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যমান বিশ্বের প্রাচীনতম প্রেসিডেন্সিয়াল শাসন।

দিবসটি উপলক্ষ্যে ইউএস সেক্রেটারি পম্পেও বলেন, জুলাই 4, ২০২০, কোভিড -19-এর কারণে বৃহত্তরভাবে উদযাপন না হতে পারে, তবে আসুন আমরা এখনও স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে প্রদত্ত স্বাধীনতার আদর্শগুলিকে প্রতিফলিত করি। ঈশ্বর আপনাদের মঙ্গল করুন,  ঈশ্বরের কাছে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের জন্যে আমরা  দোয়া করি।

উল্লেখ্য জুলাই ৪ শনিবার হওয়াতে আজ শুক্রবার জুলাই ৩, সরকারী ছুটি ঘুষনা করেছে দেশটির সরকার।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!