November 29, 2020

মাই পেটারসন. লাইফ

ভয়েস অফ দ্যা কমিউনিটি

হান্টারের দুর্নীতি: রিপাবলিকানদের তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান সিনেটররা ইউক্রেনের বিষয়ে জো বাইডেন ও তার ছেলে হান্টারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রমাণ পায়নি। তৎকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কোনো প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করেননি কিংবা কোনো অন্যায় করেননি- তদন্তে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।

তদন্ত চলাকালে রিপাবলিকানরা ভেবেছিল এর মাধ্যমে এমন কিছু বেরিয়ে আসবে যাতে আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রত্যাশী বাইডেন বিপাকে পড়বেন।

তদন্তে বলা হয়েছে, বাবা বাইডেনের নামে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে লাভজনক ব্যবসায় বিনিয়োগ করেছিলেন হান্টার। ইউক্রেনের এনার্জি কোম্পানি বুরিশমা হোল্ডিংসের সঙ্গে তার অংশীদারিত্ব স্বার্থের সংঘাত তৈরি করেছিল এবং এ বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের কর্মকর্তারাও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন। কারণ ওই সময় ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে ছিলেন বাইডেন।

বাইডেন ও তার ছেলের বিরুদ্ধে তদন্তের দীর্ঘ ৮৭ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন বুধবার প্রকাশ করেছে সিনেট হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ও ফিন্যান্স কমিটি। এতে বাইডেনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনে আমেরিকার আইনের অপব্যবহার কিংবা
অপকর্কের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত,২০১৩ সালে তৎকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন চীন সফরে যান। সে সময় তার ছেলে হান্টারও সঙ্গে ছিলেন। দুদিনের সফরে হান্টার চীনা ব্যাংকার জোনাথান লি-এর সঙ্গে দেখা করেন এবং পরবর্তী সময়ে এই লি ব্যবসায়ী অংশীদার হন হান্টারের। বাইডেনের সফরের পরপর লি একটি ব্যক্তিগত ইকুইটি ফান্ড গঠন করেন, যার বোর্ডে সদস্য হিসেবে ছিলেন হান্টার। অভিযোগ রয়েছে, চীন সফরের সময় প্রভাব খাটিয়ে বাইডেনের সঙ্গে লি-এর ঘনিষ্ঠতার সুযোগ করে দিয়েছিলেন হান্টার।

২০১৪ সালে হান্টার বাইডেন ইউক্রেনের প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি ‘বুরিসমা’তে যোগ দেন। ওই সময়ই বাবা-ছেলের সম্ভাব্য স্বার্থের সংঘাত হওয়ার আশঙ্কা করা হয়েছিল। তারপর ইউক্রেনে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হয় এবং রাশিয়াপন্থি প্রেসিডেন্টকে জোর করে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করা হয়। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জো বাইডেনই সেখানে মূল ভূমিকায় ছিলেন। ২০১৬ সালে জো বাইডেন ইউক্রেন সরকারকে তাদের শীর্ষ প্রসিকিউটর ভিক্টোর শোকিনকে বরখাস্ত করতে বাধ্য করেন। শোকিনের টিমই ‘বুরিসমা’ গ্যাস কোম্পানির মালিকের বাণিজ্যিক নথিপত্র যাচাই-বাছাই করছিল।

সূত্র: নিউ ইয়র্ক টাইমস।

error: Content is protected !!