হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থীদের রাজনৈতিক ভাইরাস বললো চীন

বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থীরা সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছে। আর এই আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে চীন। বুধবার (৬ মে) আন্দোলনকারীদের ‘রাজনৈতিক ভাইরাস’ বলে অভিহিত করে চীনের হংকং অ্যাফেয়ার্স অফিস বলেছে, এদের সরিয়ে দেয়া না হলে হংকংয়ে কখনো শান্তি আসবে না।

এক বিবৃতিতে চীনের হংকং অ্যাফেয়ার্স অফিস জানায়, আন্দোলনকারীরা ভয়ংকর, এরা হংকংকে বিচ্ছিন্ন করতে চায়। কিন্তু বেইজিং তাদের মতলব সিদ্ধ হতে দেবে না। চীন তার অখণ্ডতা ও নিরাপত্তা রক্ষার জন্য সব কিছু করবে।

বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে লকডাউনে থাকার পর আন্দোলনকারীরা ফের নড়েচড়ে ওঠে। আগামী রোববার (১০ মে) তারা প্রতিবাদ মিছিল নিয়ে রাস্তায় নামার পরিকল্পনা করছেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর ঝিমিয়ে পড়া আন্দোলনকে চাঙা করে তুলতে এটা একাট কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে আন্দোলনকারীরা কোনো প্রতিবাদ, সমাবেশ আয়োজেনের অনুমতি পাবে কিনা সেটা বোঝা যাচ্ছে না।

তবে শেষ পর্যন্ত অনুমতি পাওয়া গেলেও তরুণ প্রতিবাদীরা বলেছেন, তারা সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনেই মিছিল করবে।

মঙ্গলবার হংকংয়ের সাবেক পরিচালক তুং চি-হুয়ার নেতৃত্বে চীনাপন্থি রাজনীতিবিদরা হংকং কমিশন নামের একটি কোয়ালিশন গঠন করেছে। তারা হংকংয়ে ব্রিটিশ ঔপনিবেশকালে যে ব্যবস্থা চালু ছিল, সে ‘এক দেশ, দুই ব্যবস্থা’ নীতি গ্রহণের আহ্বান জানান। ১৯৯৭ সালে চীনের কাছে প্রত্যর্পণের সময়ও সে একই ব্যবস্থা চালু ছিল বলেও জানা গেছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!