স্কুল খোলার পর মার্কিন শিশুদের করোনা আক্রান্ত হওয়া বেড়েছে ৩৪ শতাংশ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় স্কুল আবার চালু হওয়ার পর থেকে শিশুদের কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা ৩৪ শতাংশ বেড়েছে। বুধবার ওয়াশিংটন পোস্ট এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ফ্লোরিডা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজ্যে আগস্টের শুরুতে স্কুলগুলো আবার চালু হওয়ার পর থেকে ১৮ বছরের কম বয়সী ১০ হাজার ৫১৩ শিশুর করোনা শনাক্ত হয়েছে, যাতে বৃদ্ধির হার ৩৪ শতাংশেরও বেশি। তবে এ শিশুদের মধ্যে কতজন স্কুলে বা স্কুলের বাইরে থেকে আক্রান্ত, তা স্পষ্ট নয়।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে ফ্লোরিডা রাজ্যের বেশ কিছু স্কুল অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। রাজ্যের বেশির ভাগ অভিভাবকই জানেন না করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সঙ্গে তাঁদের স্কুলগুলোর সম্পর্ক আছে কি না। কারণ কিছু কাউন্টিকে স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট তথ্য গোপন রাখতে নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, শিক্ষার্থী এবং কর্মচারীদের মাস্ক পরা উচিত কি না, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া কাউন্টিগুলোর ওপর ছেড়ে দিয়েছিল রাজ্য। কিছু কাউন্টি তা মেনেছে, তবে অনেকে তা করেনি।

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, বুধবার পর্যন্ত রাজ্যে মোট ছয় লাখ ৫২ হাজার ১৪৮ করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। জুলাই থেকে ফ্লোরিডায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ধারাবাহিকভাবে হ্রাস পাচ্ছে।

এদিকে,বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮০ লাখ ১৯ হাজার ছাড়িয়েছে। আর এ মহামারিতে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৯ লাখ ৭ হাজার।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৯ লাখ ৭ হাজার ৯১৯ জনের এবং আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৮০ লাখ ১৯ হাজার ৭৭৬ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ কোটি ৯৫ হাজার ৯৫২ জন।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, ১ লাখ ৯৫ হাজার ২৩৯ জন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এ নিয়ে ৬৫ লাখ ৪৯ হাজার ৪৭৫ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ লাখ ৬২ হাজার ৯৬৫ জন। এবং এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭৫ হাজার ৯১ জন।করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় তৃতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৬৫৩ জন। এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ লাখ ৯৯ হাজার ৩৩২ জন।
করোনায় মৃতের দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে আছে মেক্সিকো। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৯ হাজার ৯৫ জন। আর এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৬ লাখ ৪৭ হাজার ৫০৭ জন।
আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে আছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১০ লাখ ৪১ হাজার ৭ জন। আর মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ১৩৫ জন।সুস্থতার দিক থেকেও প্রথম অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র (৩৮ লাখ ৪৬ হাজার ৯৫ জন), দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে ভারত (৩৪ লাখ ৬৯ হাজার ৮৪ জন), এবং তৃতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল (৩৪ লাখ ৫৩ হাজার ৩৩৬ জন)।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!