সৌদি মালিকদের কাছে ভিসা-আকামার মেয়াদ নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিরা জিম্মি

ঢাকার কারওয়ান বাজারে সৌদি এয়ারলাইনসের সামনে ১৩ দিনের মতো রোদ বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে টিকিট এবং টোকেনের জন্য অপেক্ষা করছেন সৌদি প্রবাসীরা।তাদের দাবি, যাদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর হয়েছে তাদের আগে টিকিট নিশ্চিত করার। আর যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে তারপরও সৌদি যাওয়ার আশায় তাদের অপেক্ষা রাজধানীর কারওয়ান বাজারে। যদিও তাদের যাওয়া নির্ভর করছে সৌদি কফিলদের উপর। এই সঙ্কট সমাধানে সরকারকে ভূমিকা নেয়ার আহ্বান প্রবাসীদের।

আকামা ও ভিসার মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে সৌদি আরবে মালিকদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন প্রবাসীরা। তাদের অভিযোগ, ভিসা ও আকামার মেয়াদ বাড়াতে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে। অনেকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে ফোন না ধরারও অভিযোগও উঠেছে। অনেক প্রবাসী সরকারি প্রকল্পে কাজ করায় নেই কফিল। ভিসা ও আকামার মেয়াদ বাড়াতে কার সঙ্গে যোগাযোগ করবেন তা নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা। তাই সৌদি প্রবাসীদের ফেরা নিয়ে অনিশ্চিয়তা আরো বাড়ছে। এদিকে, সৌদি আরবে সপ্তাহে মোট ২০টি ফ্লাইট চালু হলেও ভিসা ও আকামা জটিলতায় মিলছে না টিকিট।

কার আগে কে ঢুকবেন তারই প্রতিযোগিতা। টোকেন, টিকিট সংগ্রহে সৌদি প্রবাসীদের এমন ধাক্কাধাক্কি সামলাতে বেগতিক অবস্থা খোদ আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যদের।

সকাল ১০টার পর মতিঝিলে বিমান কার্যালয় খুলে দেয়ার সাথে সাথেই মুহুর্তেই ভরে যায়। হুড়োহুড়ি করে ঢুকলেও বেশিরভাগেরই আকামা ও ভিসার মেয়াদ শেষ। ফলে মিলছে না টোকেন কিংবা টিকিট।

আকামা বা ভিসার মেয়াদ বাড়াতে কফিলদের সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দিয়েছে সরকার। প্রবাসীরা বলছেন, সরকারের এমন ঘোষণার সুযোগ নিচ্ছে কফিলরা। ভিসা ও আকামার মেয়াদ বাড়াতে আড়াই লাখ থেকে সাড়ে তিন লাখ পর্যন্ত টাকা চাচ্ছে তারা। আবার প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন অনেকে।

অন্যদিকে, সৌদি এয়ারলাইনস বৃহস্পতিবার ২শ টোকেনধারীর টিকিট দিচ্ছে। নতুন টোকেন দেয়া হবে ৪ অক্টোবর। আর চলতি সমস্যা সমাধানের সপ্তাহে ২০টি ফ্লাইট পরিচালনার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।
গত বেশ কিছুদিন ধরে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বিশেষ করে সৌদি প্রবাসী কর্মীদের ভিসা ও আকামার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ায় তাদের পুনরায় যাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। ৩০ সেপ্টেম্বর শত শত সৌদি প্রবাসী কর্মীর ভিসা, আকামার মেয়াদ শেষ হচ্ছে। স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির দাবি ও সৌদি যাওয়ার জন্য বিমানের টিকিট পাওয়ার আশায় রাজপথে আন্দোলন করছেন হাজার হাজার সৌদি প্রবাসী।

সম্প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি প্রবাসীসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের কর্মীদের ভিসার মেয়াদ ২৪ দিন বৃদ্ধির ব্যাপারে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান রাজি হয়েছেন বলে জানান। কিন্তু ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি করতে সৌদি দূতাবাসে গিয়ে প্রবাসীরা জানতে পারেন, দূতাবাস কর্তৃক মনোনীত কিছুসংখ্যক ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে ভিসার মেয়াদ বাড়াতে হবে। এরপর প্রবাসীরা বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা এ ব্যাপারে সৌদি দূতাবাস থেকে কোনো নির্দেশনা পাননি বলে জানান। এতে বিপাকে পড়ে সৌদি প্রবাসীসহ বিভিন্ন দেশের কর্মীরা।

বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে প্রবাসী কর্মীদের একটি প্রতিনিধি দল প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলে তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ গ্রহণের অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!