November 28, 2020

মাই পেটারসন. লাইফ

ভয়েস অফ দ্যা কমিউনিটি

সৌদির টিকেট: নতুন নিয়মে শৃঙ্খলা ফিরেছে, ভিড় না করার আহবান

সৌদি আরবগামী যাত্রীদের ঢাকা থেকে দ্রুত ফেরত যাওয়ার স্বার্থে আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত এ নিয়ম শিথিল করেছে। আর যাত্রী ব্যতিত অন্য কাউকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অফিসে ভিড় না করার অনুরোধ জানিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

সোমবার (৫ অক্টোবর) মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পুরাতন টিকিটধারী যাত্রীদের ধারাবাহিকভাবে কোনরকম চার্জ ব্যতিত আসন বরাদ্দ করছে। উড়োজাহাজে আসন সংখ্যা বেশি থাকলেও কোভিড-১৯ এর কারণে ঢাকা থেকে সৌদি আরবে গমনকারী উড়োজাহাজের ক্ষেত্রে প্রশস্ত উড়োজাহাজে ২৬০ জন ও অপ্রশস্ত উড়োজাহাজে ১৪০ জন যাত্রী পরিবহন করার বাধ্যবাধকতা ছিল।

এখন সৌদি আরবগামী ফ্লাইটে ইকোনমি ক্লাসের শেষ সারি ও বিজনেস ক্লাসের ১টি আসন ব্যতিত সব আসনে যাত্রী পরিবহন করা যাবে। এতে সৌদি আরবগামী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে আসন সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে সে দেশে ফেরত যাওয়ার অনুমতিপ্রাপ্ত যাত্রীদের পরিবহনে অনিশ্চয়তা অনেকাংশেই দূর হয়েছে।

এদিকে, সৌদি আরবে ফেরার টিকেট পাওয়া নিয়ে ভোগান্তিতে থাকা প্রবাসীদের কয়েকটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে টিকেট দেওয়া শুরু করেছে সাউদিয়া এয়ারলাইন্স।

আগামী তিন দিনের মধ্যে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে, তারা কোনো টোকেন না থাকলেও সরাসরি কাউন্টারে গিয়ে টিকেট সংগ্রহ করতে পারছেন।

নতুন এই ব্যবস্থা চালুর পর সোমবার সকাল থেকে ঢাকার কারওয়ানবাজারের সোনারগাঁও হোটেলে সাউদিয়ার টিকেট কান্টারের সামনে ভিড় ও জটলা কমে এসেছে।

মহামারীকালে দেশে আসা সৌদি আরব প্রবাসীদের ফেরতের জটিলতা কাটলেও যাত্রী অনেক হওয়ায় টিকেট পাওয়া নিয়ে বিড়ম্বনা চলছিল গত কয়েক দিন ধরেই।

রোববার কয়েক হাজার মানুষ সাউদিয়া কার্যালয়ে সমানে বিক্ষোভ শুরু করলে তাদের সামলাতে লাঠিপেটা করে পুলিশ। পরে বিক্ষুব্ধরা প্রায় দেড় ঘণ্টা কারওয়ান বাজারে সড়ক অবরোধ করে রাখেন।

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে গত মার্চের শেষ দিকে সারাবিশ্বের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করে করে দেয় সৌদি আরব। তার আগেই ফিরতি টিকেট (রিটার্ন টিকেট) কিনে বাংলাদেশে এসেছিলেন এই প্রবাসীরা।

এর বাইরেও নতুন করে ২৫ হাজার বাংলাদেশি সৌদি আরবে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছিলেন। কিন্তু আগে থেকে বুকিং দেওয়া যাত্রীদেরই আপাতত টিকেট দেওয়া হচ্ছে।

গত ২০ দিন ধরেই টিকেট প্রত্যাশীরা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সাউদিয়ার কার্যালয়ের বাইরে অবস্থান নিয়ে আছেন সমস্যা সমাধানের আশায়। কখনও কখনও ভিড় বেড়ে গিয়ে হাজারো মানুষের জমায়েত হয়ে যাচ্ছে। তারা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভও দেখাচ্ছেন। কিন্তু সমাধান হচ্ছে খুবই ধীরে।

সোমবারও টিকেট কান্টারের আশপাশে কয়েকশ মানুষের উপস্থিতি দেখা যায়। তবে সোনারগাঁও হোটেলের ভেতরের পরিস্থিতি ছিল বেশ শান্ত।

বেলা ১১টার দিকে মোরশেদ আলম নামে একজন কর্মী লাউডস্পিকারে ঘোষণা দেন, আগামী ১৩ অক্টোবরের মধ্যে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে, তারা অন্যান্য কাগজপত্র সঠিক থাকলে এখনই টিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন।

তিনি বলেন, অপেক্ষমাণদের মধ্যে এমন কেউ থাকলে ভেতরে চলে আসুন। আগামী ৩ দিনের মধ্যে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হচ্ছে তারা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকেট পাবেন।

মোরশেদ লাউডস্পিকারে বলেন, যারা ভিসার মেয়াদ, ফোন নম্বর ও পুরনো টিকেটের তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করেছিলেন, তাদের টিকেটের খবর এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। যারা ফরমটি পূরণ করেননি তারা এখনও পূরণ করতে পারেন।

অগ্রিম টিকেটের কী পরিমাণ যাত্রীকে সৌদি আরবে পাঠাতে হবে তার সঠিক তথ্য ঢাকা অফিসের জানা নেই বলে জানিয়েছেন সাউদিয়ার সেলস ম্যানেজার ওমর খইয়াম। ফলে যাত্রীর চাপ বেড়ে গেলে ঘোষিত সিদ্ধান্তেও পরিবর্তন আসতে পারে।

error: Content is protected !!