সেপ্টেম্বরে করোনার ভ্যাকসিন আনছেন অক্সফোর্ড বিজ্ঞানীরা


আগামী সেপ্টেম্বরের শুরুতেই করোনার ভ্যাকসিন বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। তারা বলছেন, মে থেকে আগস্ট মাসের মধ্যেই এক মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে সক্ষম তারা। এ ভ্যাকসিনটি নিয়ে ৮০ ভাগ সাফল্যের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তারা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফকে তারা এ কথা জানান।

শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) জেনার ইনস্টিটিউট ও অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা এ ঘোষণা দেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ব্রিটেনের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা স্যার প্যাট্রিক ভ্যালেন্স বারবার বলেছেন, একটি নিরাপদ ভ্যাকসিন তৈরিতে কমপক্ষে ১২ থেকে ১৮ মাস সময়ের প্রয়োজন। সেখানে অক্সফোর্ডের এ দলটি সেপ্টেম্বরের শুরুতেই ভ্যাকসিনটি তৈরি করবে বলে জানিয়েছে।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনার ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর অ্যাড্রিয়ান হিল বলেন, একবার আমাদের ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা অর্থাৎ পরীক্ষার ফলাফল পেলেই সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রায় এক মিলিয়ন ডোজ সরবরাহ করতে পারব। যেহেতু করোনাভাইরাস এখন মহামারি আকার ধারণ করেছে। এজন্য এ বছরের শেষেই বিশ্বজুড়ে কমপক্ষে ১০ কোটি ভ্যাকসিনের প্রয়োজন হবে।

তিনি বলেন, এ ভ্যাকসিনটি ভাইরাসটির জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে কারণ এটি একটি ডোজ থেকে শক্তিশালী প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

জানা গেছে, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাকসিনোলজির অধ্যাপক সারা গিলবার্ট গবেষকদের একটি দলকে একটি ভ্যাকসিন তৈরিতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, যা বিশ্বকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে রক্ষা করবে। গবেষণা দলটি দাবি করেছে তারা ৮০ ভাগ সাফল্যের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী। পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে এটুকু বলতে পারি, করোনার ভ্যাকসিন সফলভাবে তৈরি করতে পেরেছি আমরা।

এদিকে অসলো-ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কোয়ালিশন ফর এপিডেমিক প্রিপারেশন ইনোভেশনসের (সিপিআই) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিচার্ড হ্যাচেট বলেন, বেশিরভাগ জি-২০ দেশগুলির ভ্যাকসিন উৎপাদন ক্ষমতা নেই।

প্রসঙ্গত প্রাণঘাতী করোনায় বিশ্বে মৃতের সংখ্যা দেড়লাখ ছাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে ২২ লাখেরও বেশি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.