শ্রীলঙ্কায় মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত খুনি এমপি হিসেবে শপথ নিলেন

গত কয়েক দশকে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোতে মামলা, কেলেঙ্কারি, অভিযোগ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের পথে বড় কোনও বাধা নয়; অন্তত ইতিহাস  সেটাই বলে। প্রভাবশালী অভিযুক্তরা আইনের ফাঁক গলে ঠিকই বেরিয়ে আসেন কোনও না কোনওভাবে। প্রতিবেশী ভারতের পার্লামেন্টেই ৪০ শতাংশ সংসদ সদস্যের (এমপি) নামে রয়েছে একাধিক মামলা। কারও কারও বিরুদ্ধে রয়েছে খুন-ধর্ষণের মতো গুরুতর অভিযোগও।

এবার আরেক প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কাতেও প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন খুনের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামি। প্রেমালাল জয়াসেকারা নামের ওই রাজনীতিবিদ ২০১৫ সালে বিরোধী দলের নির্বাচনী সমাবেশে গুলি চালিয়ে একজনকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছিলেন। কিন্তু ক্ষমতাসীন শ্রীলঙ্কা পোদুজানা পার্টির (এসএলপিপি) এ সদস্যকে মঙ্গলবার কারাগার থেকে বের করে এমপি হিসেবে শপথ পড়ানো হয়েছে।

জানা যায়, প্রেমালালের মৃত্যুদণ্ডের রায় এসেছিল মূলত গত মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময়ের পর। এ কারণে তাকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়।

কারা কর্তৃপক্ষ না ছাড়ায় গত ২০ আগস্ট পার্লামেন্টের প্রথম অধিবেশনে অংশ নিতে পারেননি এ আসামি। এ নিয়ে আদালতে আপিল করেন তিনি। আপিলের প্রেক্ষিতে গত সোমবার আদালত আদেশ দেন, সংসদ সদস্যের অধিকার রক্ষার্থে প্রেমালালকে কারাগার থেকে পার্লামেন্টে নিয়ে যাওয়া হবে এবং অধিবেশন শেষে আবারও কারাগারে ফিরিয়ে আনা হবে।

মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি এমপি হিসেবে শপথ নেয়ায় মঙ্গলবার পার্লামেন্টে কালো কাপড় পরে প্রতিবাদ জানান শ্রীলঙ্কান বিরোধী দলীয় আইনপ্রণেতারা। এসময় বেশ কয়েকজন ওয়াকআউটও করেন। শ্রীলঙ্কার সংবিধানে মৃত্যুদণ্ডের বিধান থাকলেও ১৯৭৬ সালের পর থেকে আর কারও ওপর কার্যকর করা হয়নি এ সাজা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!