শান্তি আলোচনার মধ্যেই ২৮ পুলিশকে হত্যা করল তালেবান

কাতারের রাজধানী দোহায় তালেবান ও আফগানিস্তান সরকারের মধ্যে চলছে শান্তি আলোচনা। আর এর মধ্যেই বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে তালেবানরা আফগানিস্তানের উরুজগানে একটি চেক পোস্টে হামলা চালিয়ে ২৮ পুলিশ সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। খবর আল জাজিরার।

হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেছেন তালেবান মুখপাত্র কারি মোহাম্মদ ইউসুফ আহমাদি। অবশ্য মোট ৩১ জন পুলিশ ছিল। তাদের মধ্য থেকে ৩ জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন।

স্থানীয় একজন কর্মকর্তা জানান, পুলিশ সদস্যরা তালেবান যোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করার পর তাঁদের হত্যা করা হয়। যদিও হত্যাকাণ্ডের এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে তালেবান, খবর আলজাজিরার।

আফগানিস্তানের উরুজগান সরকারের মুখপাত্র জেলগাই এবাদি বলেন, তালেবান যোদ্ধারা পুলিশ সদস্যদের বলেন, আত্মসমর্পণ করলে মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে তাঁদের বাড়িতে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। কিন্তু আত্মসমর্পণের পর ওই পুলিশ সদস্যদের অস্ত্র কেড়ে নিয়ে তাঁদের গুলি করে হত্যা করা হয়।

স্থানীয় আরেক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আত্মসমর্পণের পর তিনজন পুলিশ সদস্য সেখান থেকে পালাতে সক্ষম হয়েছেন। নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

এদিকে বিবৃতির মাধ্যমে তালেবান নেতারা বলেন, আত্মসমর্পণের পর হত্যার যে দাবি শত্রুপক্ষ করছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তালেবান যোদ্ধারা তাঁদের বারবার অস্ত্র রেখে শত্রুতা শেষ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন কিন্তু তাঁরা যুদ্ধ চালিয়ে গেছেন।

কাতারের রাজধানী দোহায় আফগানিস্তানের সরকারের সঙ্গে তালিবানদের শান্তি আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এর মধ্যেই আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীর সঙ্গে তালেবান যোদ্ধাদের সংঘাত বেড়েই চলেছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!