লাদাখে ২০ সেনা হত্যা: চীনকে যেভাবে জবাব দিচ্ছে ভারত

ডেস্ক রিপোর্ট:

চীন সীমান্তে লাদাখে উত্তেজনায় গত ১৫ জুন ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয়।গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর দফায় দফায় বৈঠক শেষে পিছু হঠতে রাজি হয় চীন ভারত দুই দেশই। বাহ্যিক দিক দিয়ে সমস্যার সমাধান হলেও ভেতরে ভেতরে দুই দেশের মধ্যে চলছে দা কুড়াল সম্পর্ক। 

এরই মধ্যে চীনের বিরুদ্ধে বড়সড় পদক্ষেপ শুরু করেছে মোদি সরকার। কলকাতা-সহ দেশের সমস্ত বিমানবন্দর ও পোর্টে চীনা পণ্য খালাসে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কাস্টমস। লাদাখে চীনা আগ্রাসনের জবাবেই এই পদক্ষেপ।

Air Cargo Agents’ Association of India’ এবং ‘cargo managing committee’-র সদস্য জয়দীপ রাহা জানিয়েছেন, কাস্টমসের তরফ থেকে পণ্য খালাসে জড়িত সমস্ত আধিকারিকদের অভ্যন্তরীণভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তাঁরা যেন চীন থেকে আসা পণ্য খালাস না করেন। যে পণ্যে ইতিমধ্যে ক্লিয়ারেন্স দেয়া হয়েছে সেগুলিকেও যেন খালাস না করা হয়। সমস্ত পণ্য ফের পরীক্ষা করে খালাস করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। কলকাতা  ছাড়াও মুম্বাই ও চেন্নাই বিমানবন্দর ও পোর্টে এই নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, বর্তমানে ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের ৪০ টন চীনা পণ্য কলকাতায় আটকে রয়েছে। কলকাতা বিমানবন্দর হয়ে চীন থেকে আসা ১৮ হাজার টন পণ্যের ৬৫ শতাংশই চীন থেকে আমদানি করা। এগুলির মধ্যেই বেশিরভাগই হচ্ছে ইলেক্ট্রনিক্স বস্তু, কাপড়, সুগন্ধি দ্রব্য, যন্ত্রাংশ ও প্লাস্টিকের বস্তু। লকডাউন চলাকালীন হংকং, শেনঝেন-সহ চীনের অন্যান্য প্রান্ত থেকে পিপিই কিট নিয়ে একাধিক বিমান কলকাতায় আসে। কার্গো বিভাগের এক আধিকারিকের কথায়, চীনা পণ্যের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলে সাময়িকভাবে কিছুটা ক্ষতি হবে কলকাতা বিমানবন্দরের।


প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই অর্থনীতির ময়দানে বেইজিংকে কুপোকাত করতে ৩ হাজার চীনা পণ্য বয়কট করার ডাক দিয়েছিল ‘The Confederation of All India Traders’ (CAIT)। বয়কট করা জিনিসের এই তালিকায় রয়েছে টেক্সটাইল, বিল্ডার হার্ডওয়্যার, ফুটওয়্যার, গারমেন্টস, রান্নাঘরের জিনিস, লাগেজ, হ্যান্ড ব্যাগ, কসমেটিক্স , গিফট, ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স জিনিসপত্র ইত্যাদি। বর্তমানে চীন থেকে ভারতে প্রতি বছর ৫ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকার পণ্য আমদানি করা হয়। 

ভারতে সস্তা জিনিসের বাজারের কথা মাথায় রেখে এই পণ্য বিক্রি করা হয়৷ ২০২১ সালের মধ্যে চীন থেকে প্রায় ১ লাখ কোটি টাকার পণ্য আমদানি কমিয়ে ফেলার লক্ষমাত্রা নিয়েছে সংগঠনটি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!