লন্ডনে ‘পানের জন্য’ বাংলাদেশিদের মধ্যে মারামারি

অদ্ভূত এক আঁধার নেমে এসেছে পৃথিবীর বুকে। কান পাতলেই শোনা যায় ‘সেই হাহাকার রব।’ গোটা দুনিয়া ‘অঝরা অশ্রুনীরে লুকায় বেদনা।’ করোনায় আক্রান্ত আর মৃতের সংখ্যা প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতেও থেমে নেই ‘পান খাওয়া’।

এই পান খাওয়া নিয়ে লন্ডনে ঘটল ব্যাপক হট্টগোল। তাও আবার বাংলাদেশের মানুষরাই ঘটিয়েছে এমন কাণ্ড!

গত বৃহস্পতিবার পূর্ব লন্ডনের শ্যাডওয়েলে অবস্থিত একটি গ্রোসারি দোকানের সামনে পান নেওয়ার ঘটনায় হাতাহাতিতে জড়ায় বাংলাদেশি কয়েকজন বংশোদ্ভুত। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর তা ভাইরাল হয়ে যায়।

অনেকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, লাইন ধরলেও মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যে পান শেষ হয়ে যায়। যে কারণে বিভিন্নজন মোবাইলের মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় পান খুঁজতে থাকেন। পান শেষ হওয়ার খবর শুনে অনেকেই দোকানের একদম সামনে গিয়ে ভিড় করেন। এ সময় কথাকাটাকাটি থেকে হাতাহাতি শুরু করেন দুই যুবক। পরে অন্যান্যরা তাদের থামিয়ে দেন।

পান খাওয়া বা পান নেওয়া নিয়ে লন্ডনের বাংলাদেশি কমিউনিটিতেও উঠেছে অভিযোগ। জানা গেছে, গত সোমবার ও মঙ্গলবার পূর্ব লন্ডনের রহিম কাঁচাবাজারের সামনে সামাজিক দূরত্ব না মেনেই লাইনে দাঁড়ান বাংলাদেশিরা। এতে তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণের শঙ্কা রয়েছে।

যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন বাঙালি দোকানে অন্য সব জিনিস পর্যাপ্ত পরিমাণ থাকলেও, পানের সংকট চরম। কোথাও পাঁচটি, কোথাও দুটি পান বিক্রি হচ্ছে এক পাউন্ডে।

সরেজমিনে পূর্ব লন্ডনে বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, রাস্তায় রাস্তায় পান খুঁজছেন বাংলাদেশি প্রবাসীরা।

বাংলাদেশি কমিউনিটি থেকেও পান নিয়ে পাওয়া গেছে নানা খবর। পানের জন্য হাহাকার লেগেছে প্রবাসীদের ঘরে ঘরে। দোকানে দোকানে গিয়ে তারা বলছেন, ‘পান আছেনি?’

এদিকে, ইংল্যান্ডে করোনাভাইরাসের কারণে মারা গেছেন মোট ০.৬% বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত ব্রিটিশ নাগরিক। এথনিক মাইনোরিটির মধ্যে করোনাভাইরাসের কারণে মৃতদের নিয়ে কোনো আলাদা পরিসংখ্যান করা হয় না। এমন সমালোচনা শুরু হলে গত সোমবার ব্ল্যাক অ্যান্ড এশিয়ান মাইনোরিটি এথনিক কমিউনিটি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। যেখানে বলা হয়, শুধুমাত্র ইংল্যান্ডে এখন পর্যন্ত মোট ৮৪ জন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত ব্রিটিশ নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসের কারণে। এ ছাড়া পুরো ইংল্যান্ড থেকে ১০৯ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

পুরো ইংল্যান্ডে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে মোট ১৬ হাজার ৫০৯ জনের। ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৪৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.