লকডাউন-কারফিউ তুলে নিলে অবস্থা হবে ভয়ঙ্কর : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

মহামারি করোনাভাইরাস বিশ্বের প্রায় ১৮৫ দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েঝে। এখন পর্যন্ত প্রাণ কেড়েছে ১ লাখ ৪৩৭ জনের। এ রোগে বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৭ লাখের কাছাকাছি। এ অবস্থায় গোটা বিশ্বে চলছে লকডাউন। এমতাবস্থায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) হুঁশিয়ারি জানিয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনসহ জারি করা বিধিনিষেধ যদি এখনই প্রত্যাহার করা হলে সংক্রমণ ভয়ঙ্করভাবে ফিরে আসবে।

ডাব্লিউএইচও’র প্রধান ড. টেড্রোস আডানোম গেব্রিউসুস শুক্রবার জেনেভায় এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলেন এই সতর্কবার্তা জানিয়েছেন। প্রতিবেদন বিবিসির।

শুক্রবার জেনেভায় করোনা সংক্রান্ত এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) প্রধান ড. টেড্রস অ্যাডহানম ঘেব্রেইয়েসুস বলেন, ‘লক্ষ্য করা যাচ্ছে, ইউরোপের কিছু দেশে (স্পেন, ইতালি) এই মহামারি আগের তুলনায় কিছুটা শ্লথগতিতে বিস্তার করছে। তবে এমন পরিস্থিতিতে লকডাউন, কারফিউ এর মতো কড়াকড়ি ব্যবস্থা শিথিল করলে এই সংক্রমণের ভয়াবহ পুনরুত্থান ঘটতে পারে।‘ এ ব্যাপারে দেশগুলোকে সতর্ক থাকা ‍উচিত বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বলেছেন, ‘করোনার কারণে আরোপিত বাধানিষেধ কীভাবে শিথিল করা যায় বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করছে হু। তবে এতে তাড়াহুড়ো করা মোটেও ঠিক হবে না।’

ড. টেড্রস বলেন, ‘তড়িঘড়ি করে বাধানিষেধ তুলে নেয়া হলে (সংক্রমণের) মারাত্মক পুনরুত্থান ঘটবে। যথাযথভাবে এর ব্যবস্থাপনা না করা গেলে অবস্থা হবে ভয়ঙ্কর।’

ইউরোপের কয়েকটি দেশে ভাইরাসের বিস্তার মন্থর হওয়ার ঘটনাকে স্বাগত জানিয়েছেন ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, বিভিন্ন দেশের সরকারের সঙ্গে বিধিনিষেধ প্রত্যাহারের কৌশল গড়ে তোলার জন্য কাজ করছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু খুব দ্রুতই তা প্রত্যাহার করা উচিত হবে না।

বিবিসি জানিয়েছে, স্পেন ও ইতালিসহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ করোনার বিস্তার ঠেকাতে লকডাউন জারি রাখলেও কিছু বিধিনিষেধ শিথিল করার বিষয়টি বিবেচনা করছে। ওইসব দেশের উদ্দেশ্যেই মূলত সতর্ক বার্তা জানালো বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!