রেকর্ড ২২৩ রান করেও রাজস্থানের কাছে হেরে গেল পাঞ্জাব

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড নিজেদের দখলে নিল স্টিভেন স্মিথের রাজস্থান রয়্যালস। জয়ের নায়ক রাহুল তেওয়াতিয়া।১৬ থেকে ১৯, চার ওভারে ৮২। ৯ বলে ৭ ছক্কা! এই চার ওভারে যেন সাইক্লোন গেছে প্রীতি জিনতার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ওপর দিয়ে।

২২৩ রানও এখন টি-টোয়েন্টিতে নিরাপদ নয়। যেন ইটের বদলে পাটকেলটিই কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের দিকে ছুঁড়ে দিলো স্টিভেন স্মিথের রাজস্থান রয়্যালস।

২২৩ রান করেও জিততে পারলো না কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। উল্টো তিন বল হাতে রেখেই ৪ উইকেটের ব্যবধানে জিতে গেলো রাজস্থান রয়্যালস। সেই সাঞ্জু স্যামসন আবারও ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেন। আগের ম্যাচে ৯টি ছক্কা মেরেছিলেন তিনি। করেছিলেন ৭৪ রান। এবার মারলেন ৭টি ছক্কা। ৪২ বল খেলে ৮৫ রান করে রাজস্থানকে বিশাল লক্ষ্য তাড়া করে জিতিয়ে দিলেন তিনি।

শুধু সাঞ্জু স্যামসন? তার সঙ্গে জ্বলে উঠলেন স্টিভেন স্মিথ এবং রাহুল তেওয়াতিয়াও। দু’জনের ব্যাট থেকেই বেরিয়ে এলো হাফ সেঞ্চুরি। ২৭ বলে ৫০ রান করে আউট হয়েছিলেন স্মিথ। ৭টি বাউন্ডারির সঙ্গে ২টি ছক্কার মার মারেন তিনি। রাহুল তেওয়াতিয়া ৩১ বল খেলে করেন ৫৩ রান। ৭টি ছক্কার মার মারেন তিনিও।

শেষ মুহূর্তে জোফরা আরচার যেন রাজস্থানের ব্যাটিং শক্তি আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন। আগের ম্যাচেও টানা চার বলে চারটি ছক্কা মেরেছিলেন তিনি। আজও তিন বল খেলে ২টি ছক্কার মার মারেন। রান করেন অপরাজিত ১৩। তার এই ইনিংসও রাজস্থানের জয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

২২৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই জস বাটলারের উইকেট হারায় রাজস্থান। ৭ বল খেলে ৪ রান করে আউট হন তিনি। এরপর স্টিভেন স্মিথ আর সাঞ্জু স্যামসন মিলে গড়েন ৮১ রানের জুটি। ১০০ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট পড়ে। এরপর স্যামসন আর তেয়াতিয়া মিলে গড়েন ৬১ রানের জুটি।

এবার আউট হয়ে যান সাঞ্জু স্যামসন। তখনও রাজস্থানের ২৩ বলে প্রয়োজন ৬৩ রান। বাকি কাজ সারেন তেওয়াতিয়া। ছক্কার বন্যা বইয়ে দেন যেন তিনি। ৭টি ছক্কা মারেন রাজস্থানের এই মিডলঅর্ডার। আর্চার মারেন ২টি ছক্কা। শেষ মুহূর্তে এই ৯টি ছক্কাই রাজস্থানের জয় সহজ করে দিয়েছে। ১৯.৩ ওভারে ২২৬ রান তুলে নেয় রাজস্থান।

মোহাম্মদ শামি বিধ্বংসী হলেও কিংস ইলেভেনের কোনো লাভ হয়নি। শামি ৩ উইকেট নিলেও ৪ ওভারে দিয়েছেন ৫৩ রান। ৩ ওভারে ৫২ রান দেন শেলডন কটরেল। উইকেট নেন ১টি। এছাড়া জিমি নিশাম এবং মুরুগান অশ্বিন নেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল আর মায়াঙ্ক আগরওয়াল ১৮০ রানের বিশাল জুটি গড়ে তোলেন। ৫৪ বলে ৬৯ রান করেন লোকেশ রাহুল। তবে বিধ্বংসী ব্যাটিং করেন আগরওয়াল। ৫০ বলে তিনি খেলেন ১০৬ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তিনিও ছক্কা মারেন ৭টি।

নিকোলাস পুরান ৮ বল খেলে করেন ২৫ রান। ছক্কা মারেন ৩টি। এ নিয়ে দুই ম্যাচে ২টি জয় পেলো রাজস্থান।পাঞ্জাব তিন ম্যাচে দ্বিতীয়বার হেরেছে ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!