যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইলের সঙ্গে অভিমান আমিরাতের, বৈঠক বাতিল

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরাইলের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত একটি বৈঠক বাতিল করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। মার্কিন যুদ্ধবিমান এফ-৩৫ ক্রয়ের বিষয়ে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহুর আপত্তির জেরে আবুধাবি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
তুর্কি সংবাদ মাধ্যম ইয়েনি শাফাক জানিয়েছে, এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইলের সঙ্গে শুক্রবার পূর্ব নির্ধারিত বৈঠক ছিল। তবে সে বৈঠক বাতিল করেছে আবুধাবি।

সোমবার অ্যাক্সিওস নিউজের বরাতে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্র থেকে অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান ক্রয়ে আমিরাত সক্রিয় হলে তাতে বাধ সাধেন ইসরাইলি প্রধানমনন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। এর জেরেই বৈঠক বাতিল করে আবুধাবি। তবে এ বিষয়ে আমিরাতে পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যে ইসরাইলের সামরিক আধিপত্য নিশ্চিত করবে যুক্তরাষ্ট্র।
এর আগে আমিরাতের পক্ষ থেকে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণার পুরস্কার হিসেবে দেশটির কাছে এ যুদ্ধবিমান বিক্রির ঘোষণা দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

গত সপ্তাহেই ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, ছয় মাসের মধ্যে চুক্তিটি আলোর মুখ দেখবে।

সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাত তৃতীয় দেশ হিসেবে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করণের চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে। এর আগে ১৯৭৯ সালে মিসর ও ১৯৯৪ সালে জর্ডান ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে।
ইসরাইল ও আরব আমিরাতের এ চুক্তি ফিলিস্তিনি জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা বলছে, এটি ফিলিস্তিনিদের জন্য কাজ করছে না বরং ফিলিস্তিনিদের অধিকার উপেক্ষা করছে।
এর আগে ২০১১ সালে এফ-৩৫ কেনার বিষয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রাবাক ওবামার সঙ্গে আলোচনা করে। তবে ওবামা সরকার তা প্রত্যাখ্যান করে। তবে ২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর যুদ্ধবিমান কেনার উদ্যোগের ফলে আলোচনায় আসে বিষয়টি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!