‘মেজর সিনহাকে এক-দুই মিনিটেই গুলি করে হত্যা করা হয়’

কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে নিহত (অব.) সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যার ঘটনাটি গভীরভাবে অ্যানালাইসিস করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার। তিনি বলেন, মেজর সিনহাকে গুলিবর্ষণের পুরো ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে এক থেকে দুই মিনিটের মধ্যেই। এই দুই মিনিটের প্রতিটি সেকেন্ডের ঘটনাপ্রবাহ আমরা বিচার-বিশ্লেষণ করছি। প্রতিটি সেকেন্ডই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময়। এই ঘটনার অনেক তথ্য-উপাত্ত আমরা সংগ্রহ করেছি।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুর ১টায় মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যারস্থল ঘুরে টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে গণমাধ্যমকর্মীদের এসব কথা বলেন র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তিনি জানান, এক বা দুই মিনিটের মধ্যে একটা ফায়ারিং পর্যন্ত চলে যাওয়ার ঘটনা কোন পরিপ্রক্ষিতে যেতে পারে, সেজন্য চেকপোস্টের প্রত্যেকটা পয়েন্ট এবং ব্যারিকেড থেকে ব্যারিকেডের দূরত্ব, এছাড়াও প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে দূরত্ব সরেজমিনে মাপা হবে। এরপর একটা ধারণা তৈরি হবে। এই ঘটনাটা এক-দুই মিনিটের মধ্যে ঘটেছে। এক দুই মিনিটের মধ্যে প্রত্যেকটা গাড়ি চেক করা, পরিচয় জানতে চাওয়া এবং কোন অবস্থার পরিপ্রক্ষিতে গুলিটা হয়েছিলো; এই ঘটনা বের করতে হলে প্রত্যেকটা সেকেন্ডকে বিশ্লেষণ করতে হবে।

কী তথ্য পেয়েছেন জানতে চাইলে মোস্তফা সরোয়ার বলেন, এটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর ও গুরুত্বপূর্ণ মামলা। তদন্ত কর্মকর্তা তার তদন্তকাজের অংশ হিসেবে আসামিদের নিয়ে ঘটনাস্থলে এসেছেন। এটি তদন্তকাজেরই অংশ। এই মুহূর্তে কিছু বলা সমীচীন হবে না। এতে তদন্তকাজ ব্যাহত হতে পারে। তদন্তকাজটি এমনভাবে সম্পন্ন করা হবে, যাতে এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কোনও দোষী ব্যক্তি রক্ষা না পায় এবং নিরীহ লোক কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হন। ঘটনাটি যে দুই মিনিটের মধ্যে ঘটেছে, এর প্রত্যেকটি সেকেন্ড আমরা গভীরভাবে অ্যানালাইসিস করছি।

এ সময় র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ, র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক সারোয়ার বিন কাশেম ও র‌্যাব-১৫ অধিনায়ক আজিম আহমেদ এবং মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের সিনিয়র এএসপি খায়রুল ইসলামসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই রাত ১০টার দিকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এপিবিএন চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন (অব.) সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় নিহতের বোন শাহরিয়ার শারমিন ফেরদৌস বাদী হয়ে গত ৫ আগস্ট টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন। মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে র‌্যাবকে।

এদিকে, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহতের ঘটনাস্থল কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়ার শামলাপুর এলাকায় নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে অভিযুক্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে। এছাড়া হত্যা মামলার মূল অভিযুক্ত পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী ও এসআই নন্দদুলাল রক্ষিতকেও ঘটনাস্থলে নেয়ার কথা রয়েছে।

মামলার তদন্তের স্বার্থেই তাদেরকে ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হবে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!