আবারও প্রমাণ দিলেন কিম জং উন, তিনি মরেন নাই

বেশকিছুদিন ধরে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের স্বাস্থ্য নিয়ে জল্পনা চলছিল। বিভিন্ন মাধ্যম থেকে খবরও পাওয়া যাচ্ছিল যে, উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের অবস্থা গুরুতর। শুধু তাই নয়, এমনও খবর রটেছে যে, কিমের মৃত্যু হয়েছে।

গুরুতর অসুস্থ ও মৃত্যু গুজবের ২০ দিন পর প্রকাশ্যে দেখা দিলেন কিম জং উনকে। শনিবার দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ তাদের প্রতিবেদনে এই খবর প্রকাশ করেছে।

কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, শুক্রবার রাজধানী পিয়ংইয়াংয়ের নিকটবর্তী সানচনে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। প্রায় ৩ সপ্তাহ ধরে সারা বিশ্বে কিমের মৃত্যু সংবাদ নিয়ে জোর আলোচনার পর প্রকাশ্যে বহুল আলোচিত এই নেতা।

কেসিএনএ জানিয়েছে, একটি সার কারখানার উদ্বোধনের ফিতা কেটেছেন কিম জং উন। অনুষ্ঠানে কিমকে সশরীরে হাজির হতে দেখে উপস্থিত জনতা উল্লাসে ফেটে পড়ে। তবে কিমের ছবি প্রকাশ করলেও অনুষ্ঠানের বা উপস্থিত জনতার কোনো ছবি প্রকাশ করেনি কেসিএনএ।

১১ এপ্রিল ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো বৈঠকের সভাপতিত্ব করার পর থেকে উত্তর কোরিয়ার নেতা আর প্রকাশ্যে আসেননি। এর পর গত ১৫ এপ্রিল কিমের দাদা ও উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতার জন্মদিন ছিল। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কিম অনুপস্থিত ছিলেন। দেশের এমন গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে অনুপস্থিতির কারণে কিমের স্বাস্থ্য নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়। কিমের মৃত্যু হয়েছে—এমন গুঞ্জনও ছড়িয়ে পড়ে। কিমের পর উত্তর কোরিয়ার নেতৃত্বে উত্তরসূরি কে হবেন, এমন প্রশ্নও ওঠে। তবে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র বলে আসছে কিম জং–উন সুস্থ আছেন।

উত্তর কোরিয়ার রদং সিনমুন পত্রিকায় প্রকাশিত ছবিতে কিমকে তাঁর চিরচেনা কালো স্যুট পরা অবস্থায় দেখা গেছে। তাঁর সঙ্গে বোন ও ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা কিম ইয়ো জং ছিলেন। ছিলেন অন্য জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারাও। কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সির খবরে জানানো হয়, কিমকে দেখার পরে সবাই ‘হুররে’ বলে উচ্ছাস প্রকাশ করেন।

এর আগেও বহুবার কিম জং উনের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিবারই তিনি প্রকাশ্যে এসে গুজবকে মিথ্যা প্রমাণ করেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!