মাস্ক না পরায় কমান্ডোকে শিকলে বেঁধে রাখল পুলিশ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে কারণে সব ধরনের কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ভারতীয় সরকার।দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। আর সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে যেখানে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে মাও বিরোধী কোবরা বাহিনীর এক সিআরপিএফ কম্যান্ডোর বিরুদ্ধে মাস্ক না পরার অভিযোগ উঠেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, ওই কম্যান্ডো ছুটিতে নিজের বাড়ি কর্ণাটকের বেলাগভিতে ছিলেন, তিনি মাস্ক না পরে ঘোরাঘুরি করায় তাকে মারধর করে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে মেঝেতে বসিয়ে রাখা হয়।

ভারতে কোবরা ব্যাটেলিয়ন সিআরপিএফ এর বাহিনী। মাওবাদী উপদ্রুত এলাকায় এই বাহিনী মোতায়েন করা হয়। ছবিতে দেখা গিয়েছে সেঁকলে বাঁধা রয়েছেন কম্যান্ডো, সম্ভবত থানায় বসে রয়েছেন তিনি, এই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

তবে সিআরপিএফের এক শীর্ষ কর্তাকে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, পুলিশের এই নৃশংসতার বিরুদ্ধে পাল্টা এফআইআর করার চিন্তাভাবনা করছে তারা।

সেই চিঠিতে, সিআরপিএফের তরফে বলা হয়েছে, ওই কম্যান্ডোকে হেনস্থা, খারাপ ব্যবহার, খালি পায়ে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে, হ্যান্ডকাফ ও চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে।

এদিকে, পুলিশের তরফে লেখা হয়েছে, হঠাৎই কনস্টেবলের সঙ্গে অশ্লীল ভাষায় ঝগড়া শুরু করেন ওই কম্যান্ডো এবং বলেন, আমিও সিআরপিএফ এর পুলিশ। আপনারা আমায় বলতে পারেন না, আমি কখনই আপনাদের নিয়ম মানব না।

সিআরপিএফ’র মুখপাত্র মসেস দিনাকরণ পিটিআইকে বলেন, আমরা বিষয়টি নিয়ে কর্নাটক রাজ্য পুলিশের প্রধানের সঙ্গে কথা বলছি। মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) আদালতে তার জামিনের আবেদন পৌঁছে যাবে এবং সিআরপিএফের স্থানীয় আধিকারিকরা সেখানে উপস্থিত থাকবেন। আইনি মীমাংসায় করা হবে মামলার তদন্ত।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.