মালয়েশিয়ার আইন-কানুন মেনে চলার অনুরোধ বাংলাদেশের হাইকমিশনারের

বন্ধুরাষ্ট্র মালয়েশিয়া সম্পর্কে ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করে দুই দেশের সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে উল্লেখ করে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মহ. শহীদুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মধ্যে যে চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে তার ধারাবাহিকতা রক্ষার্থে সকলে একসঙ্গে ইতিবাচক ভঙ্গিতে কাজ করে যেতে হবে। দেশের বদনাম হয় এমন কিছু করা বা লেখা ঠিক হবে না। তবেই দেশের একজন প্রকৃত দূতের মত ভূমিকা পালন করা হবে।

মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মহ. শহীদুল ইসলামের সাথে সাক্ষাত করেছেন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়া নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার (২ অক্টোবর) দূতাবাসের মিটিং রুমে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে এক বৈঠকে এসব কথা বলেন হাইকমিশনার ।

সংক্ষিপ্ত আলোচনায় মহ. শহীদুল ইসলাম বলেন, মালয়েশিয়ায় বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন রকম সেবা দ্রুত ও সহজে প্রদান করার জন্য দূতাবাস আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এসময় মালয়েশিয়ায় অভিবাসী বাংলাদেশিদের মালয়েশিয়ার আইন-কানুন মেনে চলতে অনুরোধ করেন তিনি।

হাইকমিশনার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে উন্নয়ন করছে তার স্বীকৃতি আমরা পাচ্ছি বিভিন্ন বিদেশীদের কথায় ও আচরণে। আমাদের সবার দ্বায়িত্ব এ উন্নয়নের চাকাকে আরো গতিশীল করা। এক্ষেত্রে প্রবাসী ভাইদের অবদান কোন অংশেই কম নয়। তাদের সেবা প্রদানের সুযোগ পাওয়া সৌভাগ্যের বিষয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বর্তমান করোনা মহামারীর মধ্যেও প্রবাসীদের সহায়তা দেওয়া, কোম্পানি পরিবর্তন করার সুযোগ পাওয়া এবং চাকরিহীন হয়ে কাউকে দেশে ফিরে যেতে হয়নি। অধিকন্তু ছুটিতে দেশে থাকা কর্মীরা মালয়েশিয়া ফিরে আসা এবং অবৈধদের বৈধতা প্রদানের জন্য প্রচেষ্টা দূতাবাস অব্যাহত রেখেছে বলে তিনি জানান।

শহীদুল ইসলাম বলেন, মালয়েশিয়ায় শুধু কর্মী নয়, এখানে ছাত্র, শিক্ষক, ইঞ্জিনিয়ার, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, প্রযুক্তিবিদসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বুদ্ধিদীপ্ত ও দক্ষ ব্যক্তিদের পদচারণা রয়েছে। বন্ধু ও সজ্জ্বন, সৎ, পরিশ্রমী ও দক্ষ হিসেবে বাংলাদেশের নাগরিকদের সুনাম রয়েছে মালয়েশিয়ায়। কিন্তু নানা ধরনের অপপ্রচার ও মিথ্যাচারের কারণে এ কষ্টার্জিত সুনামকে দারুনভাবে ক্ষুন্ন করে।

হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশ হাইকমিশনের সকল সফলতার পিছনে রয়েছে বাংলাদেশ কমিউনিটির অবদান। পাশাপাশি সাংবাদিকদের অবদানও ছিল সবসময়। তাই বাংলাদেশ হাইকমিশন আপনাদের নিকট কৃতজ্ঞ। আগামীতেও দেশের ভাবমূর্তি বৃদ্ধি করে এমন তথ্য দেশবাসী ও বিশ্বের নিকট তুলে ধরবেন বলে আমার বিশ্বাস।

প্রবাসের সংবাদ প্রকাশনার ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের উভয় দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় বিবেচনায় আনার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ভুল বার্তা দেয় বা ভীতির সঞ্চার করে এমন বার্তা গেলে দেশে অবস্থিত প্রত্যেকটা পরিবার দুশ্চিন্তায় পড়ে।

আলোচনা শেষে হাইকমিশনার মহ. শহীদুল ইসলাম ও ডেপুটি হাইকমিশনার ওয়াহিদা আহমেদকে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়া’র পক্ষ থেকে বিদায়ী সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, হাইকমিশনের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা কমোডর মোস্তাক আহমেদ, শ্রম কাউন্সিলর মো: জহিরুল ইসলাম, কাউন্সিলর (শ্রম ২য়) মো: হেদায়েতুল ইসলাম, প্রথম সচিব মো: মাসুদ আহমেদ, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব মালয়েশিয়া সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমেদুল কবির, সাধারণ সম্পাদক বশীর আহমেদ আহমেদ ফারুক, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম হিরণ, শাহাদাত হোসেন, কাজী আশরাফুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ মনিরুজ্জামান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আবির উদ্দিন ও মহিলা সম্পাদিকা ফারজানা সুলতানা প্রমুখ ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!