মানবপাচার, শিশু পাচার, নারী পাচার বন্ধ করতে চাই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা

বাংলাদেশ থেকে মানবপাচার এবং শিশু পাচার পুরোপুরি বন্ধ করার আশাবাদ ব্যক্ত করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, পাচারকারীদের চিহ্নিত করে সামাজিকভাবে বয়কট করা দরকার। অবৈধভাবে যারা যায় তাদের মা-বাবা, আত্নীয়-স্বজনও দায়বদ্ধতার বাইরে না। নিজ সন্তানদের জেনেশুনে অবৈধভাবে বিদেশে না পাঠানোর আহ্বান জানিয়ছেন তিনি। 

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের করা মানবপাচারের বিরুদ্ধে লড়াইকারী দেশগুলোর একটি তালিকায় বাংলাদেশ টায়ার-২ এ উন্নীত হওয়ার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে শুক্রবার এক ভিডিও বার্তায় এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ড. মোমেন বলেন, আমরা এ দেশ থেকে মানবপাচার, শিশু পাচার, নারী পাচার এগুলো বন্ধ করতে চাই। সকলের সহায়তা ছাড়া আমরা এটি করতে পারবো না।

অবৈধভাবে যারা বিদেশে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন তার দায় তাদের পরিবার, আত্মীয়-স্বজন বা প্রতিবেশীরাও এড়াতে পারেন না উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্র্রী আরও বলেন, ‘আপনারা বুঝে শুনে আপনাদের সন্তানদেরকে অবৈধভাবে বিদেশে পাঠাবেন না। আর অবৈধভাবে কেউ বিদেশ পাঠানোর কথা বললে পুলিশ বা স্থানীয় প্রশাসনকে তা অবগত করুন।’

এ বিষয়ে সরকারকে সহায়তা করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অবৈধ মানবপাচার রোধে আপনাদের সকলের সহায়তা প্রয়োজন। এ বিষয়ে দেশবাসীকে শক্তিশালী জনমত গঠন করতে হবে।’

তবে মানবপাচার, শিশু পাচার, নারী পাচার রোধে বাংলাদেশের অনেক অগ্রগতি হয়েছে বলেই বিশ্ব তার স্বীকৃতি দিয়েছে বলে মন্তব্য করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

দেশের অভ্যন্তরে ও বিদেশে বিভিন্ন মানবপাচারের ঘটনার সঙ্গে বাংলাদেশিদের জড়িত থাকার কারণে এবং দেশের ভেতরে এ ধরনের অপরাধের  বিচারে অপর্যাপ্ত ব্যবস্থার কারণে গত তিন বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্র মানবপাচার রিপোর্টে দ্বিতীয় স্থরের নজরদারি তালিকায় ছিল বাংলাদেশ। এ বছর পরিস্থিতির উন্নয়ন হওয়ায় নজরদারির তালিকা থেকে উন্নীত হয়ে বাংলাদেশ দ্বিতীয় স্থরে উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্র মানবপাচার রিপোর্টে চারটি ক্যাটাগরিতে দেশগুলোকে ভাগ করা হয়। এগুলো হচ্ছে- প্রথম স্তর, দ্বিতীয় স্তর, দ্বিতীয় স্তর নজরদারি (ওয়াচলিস্ট) ও তৃতীয় স্তর। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও প্রেসিডেন্ট ডোলান্ড ট্রাম্পের উপদেষ্টা ইভাঙ্কা ট্রাম্প রিপোর্টটি উদ্বোধন করেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মানবপাচার বিষয়ক এক প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে ওয়াচ লিস্ট থেকে টায়ার-২ এ উন্নীত করার কথা বলা হয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!