মহামারীতেও নিউইয়র্কে ১২ শতাংশ বেড়েছে কন্স্যুলার সার্ভিস: সাদিয়া

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

কোভিড-১৯ মহামারীতে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্র। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে দেশটিতে তাণ্ডব চালাচ্ছে এই মহামারী। কোনো কোনো অঞ্চলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউ দেখা দিয়েছে। রোজ হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। আর করোনা মহামারির কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হলেও আগের বছরের চেয়ে গতবছর নিউইয়র্কে কন্স্যুলার সার্ভিসের মাত্রা বেড়েছে ১২%। বিশেষ করে নতুন পাসপোর্টের আবেদন প্রসেসিং ও বিতরণ করা ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের পাসপোর্টধারী বাংলাদেশিদের ‘নো ভিসা রিকোয়ার্ড’ (এনভিআর) সীল প্রদানের ক্ষেত্রে লকডাউনের মধ্যেও অনলাইন, ই-মেইল, আই ট্র্যাকেবল পোস্টাল সার্ভিস (ITrackable Postal Service) এর কার্যক্রম একইধারায় (করোনার আগের মত) করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মধ্য মার্চেই নিউইয়র্ক সিটিসহ বিভিন্ন স্টেটে লকডাউন শুরু হয়। এর তিন মাস পর ৬ জুন হতে নানা প্রক্রিয়া এবং স্বাস্থ্যবিধির আওতায় নিউইয়র্ক সিটিতে লকডাউন শিথিল করা হয়।

এসব প্রসঙ্গ উল্লেখ করে কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা ১৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার এ সংবাদদাতাকে বলেন, সিডিসি ও স্থানীয় প্রশাসনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে কনস্যুলেট সার্বক্ষণিক ২টি হটলাইন (২৪/৭), ইমেইল, আই ট্র্যাকেবল পোস্টাল সার্ভিসের মাধ্যমে এবং জরুরী প্রয়োজনে সশরীরে উপস্থিতির মাধ্যমে কনস্যুলার ও কল্যাণ সেবা অব্যাহত ছিল। সাদিয়া উল্লেখ করেন, নিউইয়র্কে লকডাউন প্রত্যাহার করা হলে যুক্তরাষ্ট্রের সিডিসি এবং নিউইয়র্ক স্টেট প্রশাসনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনলাইন/টেলিফোনে এ্যাপয়েন্টমেন্টের ভিত্তিতে পরস্পর হতে ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে সশরীরে সেবা চালু করা হয়। কন্সাল জেনারেল বলেন, বর্তমানে গড়ে প্রতিদিন সশরীরে দেড় শতাধিক এবং ডাকযোগে আরো দেড় শতাধিক, এই মোট তিন শতাধিক প্রবাসীকে সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

কন্স্যুলার সার্ভিসের বিস্তারিত তথ্য উল্লেখ করে কন্সাল জেনারেল সাদিয়া আরো বলেন, ২০২০ সালে ১০ হাজার ৩৯০টি পাসপোর্টের আবেদন গৃহীত হয়েছিল এবং ২০২০ সালেই ৯৬২৯টি পাসপোর্ট ডেলিভারী দেয়া হয়েছে। ২০২০ সালে পাসেপোর্ট সেবার সংখ্যা ২০১৯ সালের তুলনায় প্রায় ১২ শতাংশ বেশী। ২০২০ সালে করোনা মহামারীর মধ্যেও ৭১৪৪টি নো-ভিসা রিকোয়ার্ড (NRV) এবং ৮৮৫টি সত্যায়ন ইস্যু করা হয়েছে। সাদিয়া জানান, এই পরিসংখ্যান প্রমাণ করে যে করোনাকালেও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল সার্বিক কার্যক্রম পূর্ণদ্যোমে অব্যাহত রেখেছে। জানা গেছে, নিউইয়র্ক কন্স্যুলেট অফিসটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি সার্ভিস সেন্টার হিসেবে প্রতিমাসেই আয়-ব্যয়ের হিসাব সাবমটি করা হচ্ছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। অর্থাৎ সার্ভিস প্রদানের বিপরীতে সরকার নির্দ্ধারিত যে ফি নেয়া হয় সে হিসাবও অটোমেটিক উপস্থাপিত হয় কোন খাতে কতটি আবেদন জমা হয়েছে সে তথ্য উপস্থাপনের সময়েই।

এদিকে, অমর একুশে উপলক্ষে বহুজাতিক ভার্চুয়াল সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কন্স্যুলেট। কুইন্স পাবলিক লাইব্রেরি’র সাথে সোমবার বেলা ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১’ উপলক্ষে বহুজাতিক এই কর্মসূচি ২২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান সাদিয়া।

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবং অমর একুশের চেতনা নিউইয়র্কের মূলধারায় সুপরিচিত করার প্রয়াসে বাংলাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতির সম্মিলনে এই অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হবে (https://www.facebook.com/QPLNYC)।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, নিউইয়র্ক ও কুইন্স পাবলিক লাইব্রেরি যৌথভাবে ২০১৯ সাল থেকে প্রতিবছর বিভিন্ন ভাষা ও সংস্কৃতির প্রবাসী/কমিউনিটির সদস্যবৃন্দ এবং কুইন্সের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে বিপুল সমারোহে এ দিবসটি পালন করে আসছে, যা কুইন্সের মূলধারায় ইতোমধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এ বছর দিবসটি ভার্চুয়ালে উদযাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এ অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ.কে. আব্দুল মোমেন এমপি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার আলম এমপি, জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ও সাবেক মুখ্যসচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং, কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট ডোনাভান রিচার্ডস, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন সি. ল্যু, জর্জিয়া স্টেট সিনেটর শেখ রহমান, নিউইয়র্ক স্টেট এ্যাসেম্বলীওমেন ক্যাটালিনা ক্রুজ, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহীদুল ইসলামসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূত/কনসাল জেনারেল এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন।

এছাড়া, পৃথিবীর সকল ভাষাকে সম্মান জানাতে এ অনুষ্ঠানে বাংলা ভাষাসহ অন্যান্য ভাষায় থাকবে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!