মধ্যযুগীয় কায়দায় চোর সন্দেহে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন! ভাইরাল ভিডিও

চোর সন্দেহে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দেএক ব্যক্তিকে মধ্যযুগীয় কায়দায় গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজেলার জামতৈল কলেজপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ছাগল চুরির সন্দেহে ওই ব্যক্তিকে রশি দিয়ে গাছের সঙ্গে হাত-পা বেঁধে তার হাতের নখগুলো প্লাস দিয়ে ভেঙে ফেলেছেন স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী হ্যাপি। এ সময় ভুক্তভোগী ব্যক্তি চিৎকার করতে থাকেন। আর ব্যবসায়ী হ্যাপি বলতে থাকেন, ‘অন্য চোরদের নাম বল, নাম না বলা পর্যন্ত আঙ্গুল সবগুলো ভাঙবো তার আগে ছাড়বো না। ওকে মেরে ফেলবো না, কিন্তু ওর হাত-পা ভাঙবো তারপর ছেড়ে দেবো।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অজ্ঞাত ওই ব্যক্তিকে ছাগল চোর সন্দেহে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করেন হ্যাপি ও তার ছেলে। আর না মারার জন্য ওই ব্যক্তি বার বার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কথা শোনেননি তারা। একপর্যায়ে ওই ব্যক্তিকে না মেরে পুলিশে দেওয়ার কথা বললেও তারা তাকে মারতেই থাকেন। নির্যাতনের প্রায় দুই ঘণ্টা পর ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দেন হ্যাপি।

হ্যাপি এ বিষয়ে বলেন, ‘এর আগে আমার একটি ছাগল হারিয়েছে। আবার আরেকটি ছাগল নিয়ে যাওয়ার সময় ছাগলসহ হাতেনাতে ধরে দু-একটা চড়-থাপ্পর দিয়ে ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দেই। এ ব্যাপারে থানা থেকে পুলিশ এসেছিলেন। আমি বাড়িতে না থাকায় মুঠোফোনে থানার লোকদের সঙ্গে কথা হয়েছে।’

কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। নির্যাতিত ও নির্যাতনকারী কাউকে সেখানে পাওয়া যায়নি। তারপরও আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!