ব্রিটিশ সরকারকে আদালতে দাঁড় করানোর হুমকি ডাক্তারের

বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে কালো থাবা বসিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস। আর এ ভাইরাস মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে দেশটির সরকারকে আদালতের দাঁড় করানোর হুমকি দিয়েছেন দেশটির এক ডাক্তার। ২০১৬ সালে ফ্লু মহামারি নিয়ে পরিচালিত এক গবেষণার রিপোর্ট প্রকাশের দাবিতে এ অবস্থানে গিয়েছেন ওই ডাক্তার।

গবেষণার অপ্রকাশিত প্রতিবেদন প্রকাশের দাবিতে ইতিমধ্যে ব্রিটিশ জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের চিকিৎসক মুসা কোরেশি স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর একটি প্রি অ্যাকশন প্রটোকল লেটার পাঠিয়েছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্য সরকার ফ্লু মহামারি মোকাবিলা করতে পারেনি, এক্সারসাইজ সিগনাস নামের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল।

কিন্তু সপ্তাহে সরকারের ‘নিউ অ্যান্ড ইমার্জিং রেসপিরেটরি ভাইরাস থ্রেটস অ্যাডভাইজারি গ্রুপ’কে উদ্ধৃত করে অবজারভারে এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। সেখানে বলা হয়, এক্সারসাইজ সিগনাসে চারটি সুপারিশ করা হয়েছিল।

কোরেশি বলছে, সরকার যদি পর্যাপ্ত কারণ ছাড়া এক্সারসাইজ সিগনাসের প্রতিবেদনটি প্রকাশ না করে, তবে সে সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করতে এবং প্রতিবেদনটি প্রকাশের আবেদন জানিয়ে তার আইনজীবীরা জরুরি ভিত্তিতে জুডিশিয়াল রিভিউ’র জন্য আবেদন করবেন।

অন্যদিকে, ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ তাদের এক প্রতিবেদনে মন্তব্য করেছে, কোরেশির দাবি সত্য হলে এবং প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলে এ ঘটনা সরকারকে বড় ধরনের লজ্জার মধ্যে ফেলবে।

কোরেশি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, সরকার যদি সিগনাস এক্সারসাইজকে অনুসরণ করতো এবং স্বাস্থ্য ও সামাজিক সুরক্ষামূলক অংশীদার, ইন্ডাস্ট্রি ও জনগণের সঙ্গে সে অনুযায়ী যুক্ত হতো, তবে কোভিড-১৯ থেকে আমার অনেক বীর সহকর্মীসহ বিপুলসংখ্যক মানুষকে বাঁচানো সম্ভব হতো।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!