ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক মহামারি করোনাকালে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করেছেন। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ক্লার্কের পদত্যাগপত্র তিনি গ্রহণ করেছেন।

করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে নিউজিল্যান্ডকে সফল দেশ বলেই গণ্য করা হয়। কিন্তু সম্প্রতি করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে দেশটির সীমান্ত ও আইসোলেশন ব্যবস্থাপনা নিয়ে সরকারের কর্মকাণ্ড নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়।

করোনাকালে গত এপ্রিলে লকডাউন ভেঙে সপরিবারে সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে গিয়ে সমালোচিত হয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক। এরপর পাহাড়েও ভ্রমণে গিয়েছিলেন তিনি। এ বিষয়গুলো সামনে আসায় তাঁর বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে। তখনই তিনি পদত্যাগ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু করোনাজনিত সংকটকালে তাঁকে কাজ করে যেতে বলা হয়েছিল। তবে পদাবনতি হয়েছিল তাঁর। এবার আর ক্লার্ককে ফেরাননি জেসিন্ডা আরডার্ন।

জানা গেছে, সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডে আইসোলেশনে থাকা দুই ব্যক্তি কোনো করোনা পরীক্ষা ছাড়াই তাঁদের মৃত্যুপথযাত্রী আপনজনের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার অনুমতি পান। পরে ওই ব্যক্তিদের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

এদিকে, পদত্যাগের বিষয়ে ডেভিড ক্লার্ক বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকাকালে যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সেগুলোর পুরো দায়ভার আমি নিচ্ছি।

ক্লার্ক পদত্যাগ করায় আপাতত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শিক্ষামন্ত্রী ক্রিস হিপকিন্সকে। তিনি আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য সাধারণ নির্বাচনের আগ পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করবেন।সূত্র: বিবিসি ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!