বেলারুশের বিরোধী দলীয় নেত্রীকে ‘অপহরণ’

বেলারুশে সরকার বিরোধী বিশাল গণর‌্যালির পর অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিরা রাজধানী মিনস্ক থেকে অপহরণ করেছে বিরোধী দলীয় নেত্রী মারিয়া কোলেসনিকোভা’কে।

ওই বিক্ষোভ থকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বেশ কিছু বিক্ষোভকারীকে। বেলারুশের মিডিয়া আউটলেট টুটু ডট বাই প্রত্যক্ষদর্শীদের উদ্ধৃতি এ খবর দিয়েছে বলে জানিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা।
এতে বলা হয়, মুখোশপরা ব্যক্তিরা তুলে নিয়ে গেছে কোলেসনিকোভা’কে। এরপর তাকে একটি মিনিভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অজ্ঞাত স্থানে। আগস্টে বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়। ওই নির্বাচনের প্রতিবাদে রোববার সরকারবিরোধী গণর‌্যালি হয় রাজধানীতে। সেখান থেকে নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা গ্রেপ্তার করেছে ৬৩৩ জনকে।
কিন্তু কোলেসনিকোভাকে গ্রেপ্তারের কথা অস্বীকার করেছে মিনস্কের পুলিশ বাহিনী। উল্লেখ্য, গত ৯ই আগস্ট সেখানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দীর্ঘ সময়ের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্দার লুকাশেঙ্কোকে চ্যালেঞ্জ জানাতে একত্রিত হয়েছিলেন তিনজন নারী নেত্রী। তার মধ্যে রাজনীতির মাঠে সর্বশেষ সক্রিয় ছিলেন কোলেসনিকোভা । তাকে অপহরণ করার ফলে প্রেসিডেন্টের সামনে এখন রাজনীতির মাঠ ফাঁকা। তিনি যেকোনোদিকেই গোল দিতে পারবেন।
লুকাশেঙ্কোর কড়া সমালোচক ছিলেন কোলেসনিকোভা। দেশে নির্বাচন পরবর্তী রাজনৈতিক সঙ্কটে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছিলেন। তার নেতৃত্বে কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশটিতে গণবিক্ষোভ ও ধর্মঘট পালিত হয়েছে। জনগণ দাবি করছে ওই নির্বাচন হয়েছে ব্যাপক জালিয়াতির মাধ্যমে। ফলে প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কো পেয়েছেন শতকরা ৮০ ভাগেরও বেশি ভোট। অন্যদিকে তার কড়া প্রতিদ্বন্দ্বী সভেতলানা টিকানোভস্কায়া পান শতকরা মাত্র ১০ ভাগের কিছু বেশি ভোট। নির্বাচনের আগে কোলেসনিকোভা জোট বেঁধেছিলেন টিকানোভস্কায়া এবং বেরোনিকা সেপকালোর সঙ্গে। নির্বাচনের পরে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশ ছেড়ে লিথুয়ানিয়ায় আশ্রয় নিয়েছেন টিকানোভস্কায়া। এ চাড়া দেশ ছেড়েছেন সেপকালোও। শনিবার পোল্যান্ডে পৌঁছেছেন আরেকজন শীর্ষস্থানীয় নেতা ওলগা কোভালকোভা। তিনি বলেছেন, তাকে বলে দেয়া হয়েছে, তিনি যদি বেলারুশে অবস্থান করেন তাহলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। পোল্যান্ড থেকে তিনি আল জাজিরাকে বলেছেন, কোলেসনিকোভা কোথায় আছেন, এ বিষয়ে তার কাছে কোনো তথ্য নেই।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!