বাংলাদেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৬৬

বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে পাঁচ হাজার ৪৪ জনের।
নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৬৬৬ জন। সবমিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৫৩ হাজার ৮৪৪ জনে।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে জানানো হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গ বিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ১৬৩ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ৬২ হাজার ৯৫৩ জন।

এছাড়া সারাদেশে সরকারি ও বেসকারি ব্যবস্থাপনায় ১০২ টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৩ হাজার ৯৭৭ টি। আগের নমুনাসহ মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৪ হাজার ১৫০ টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৮ লাখ ৬২ হাজার ৬৩৭ টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার হার ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৯১ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৪ দশমিক ৬৪ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৩ শতাংশ।

বিজ্ঞতিতে নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৩৭ জনের মধ্যে ২৪ জন পুরুষ ও নারী ১৩ জন। এদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগে ২৩ জন, চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগে পাঁচজন করে ১০ জন। এছাড়া রাজশাহী বিভাগে দুইজন, সিলেট ও বরিশাল বিভাগে একজন করে দুই জন রয়েছেন। তাদের মধ্যে হাসপাতালেই মারা গেছেন ৩৫ জন। বাড়িতে দুইজন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে ১৯ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে তিন জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুই জন, শুণ্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ২৬২ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৪১১ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৭৯ হাজার ৮১৬ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৬৩ হাজার ৬৩৫ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৬ হাজার ১৮১ জন।

দেশে গত ৮ মার্চ করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত (কোভিড-১৯) প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এর একদিন আগে মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) দেশে আরও ১ হাজার ৫৫৭ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এছাড়া আক্রান্তদের মধ্যে মারা যান আরও ২৮ জন।

এদিকে, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বুধবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৯ লাখ ৭৫ হাজার ৯৫১ জনের। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১৮ লাখ ১২ হাজার ৮৫৪ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ কোটি ৩৪ লাখ ১৯ হাজার ৩৬১ জন।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, ২ লাখ ৫ হাজার ৪৭৮ জন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এ দেশটিতে। এ নিয়ে ৭০ লাখ ৯৮ হাজার ২৯১ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় অবস্থানে আছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫৬ লাখ ৫০ হাজার ৫৪০ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯০ হাজার ৭৭ জন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় তৃতীয় এবং মৃতের সংখ্যায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৩৩৫ জন। এছাড়া আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ লাখ ৩৮ হাজার ১৫৯ জন।

করোনায় মৃতের দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে আছে মেক্সিকো। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭৪ হাজার ৩৪৮ জন। আর এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৭ লাখ ৫ হাজার ২৬৩ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে আছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১১ লাখ ২২ হাজার ২৪১ জন। আর মৃতের সংখ্যা ১৯ হাজার ৭৯৯ জন।

সুস্থতার দিক থেকেও প্রথম অবস্থানে উঠে এসেছে ভারত (৪৫ লাখ ৮৭ হাজার ৬১৩ জন), দ্বিতীয় অবস্থানে নেমে গেছে যুক্তরাষ্ট্র (৪৩ লাখ ৪৭ হাজার ১৭২ জন), এবং তৃতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল (৩৯ লাখ ৪৫ হাজার ৬২৭ জন)।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৫টি দেশে ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!