বলিউডের ৫০ তারকা মাদকাসক্ত!

বলিউডের বেশিরভাগ তারকাই নাকি মাদকে আসক্ত। এবার খোঁজ মিলতে শুরু করেছে বলিউডের গভীরে বিস্তার করে থাকা মাদক চক্রের। প্রথমে বলা হয়েছিল বলিউডের ২০ জন তারকার নাম রয়েছে মাদক কেলেঙ্কারিতে। সপ্তাহ না পেরোতেই সেই সংখ্যাটি বেড়ে এখন ৫০।

সুশান্ত সিং রাজপুত্রের অপমৃত্যু বলিউডকে তছনছ করে দিয়েছে। বদলে দিচ্ছে পুরনো সব হিসেব-নিকেশ। বলিউডে নতুন করে রচিত হয়েছে এক কালো অধ্যায়, ‘মাদক কেলেঙ্কারি’। বলিউডের বেশিরভাগ তারকাই নাকি মাকাসক্ত। উঠে এসেছে শীর্ষ নারী তারকা দীপিকার নামও।

ইতিমধ্যে ৮ সেপ্টেম্বর বলিউড তারকা সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) গ্রেপ্তার করেছে।

সুশান্তের মৃত্যুতে মাদকের সূত্র পাওয়া যায়। এরপর আলাদা করে তদন্ত শুরু করে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো। তদন্ত করে রিয়াসহ মাদক কেলেঙ্কারিতে গ্রেপ্তার করা হয় ১৮ জনকে। পরে রিয়ার বক্তব্যে উঠে আসে সারা আলী খান ও রাকুল প্রীতের নাম।

জবানবন্দিতে রিয়া জানিয়েছেন, সুশান্তের সঙ্গে বসেই নাকি মাদক সেবন করতেন সারা ও রাকুল। এ নিয়ে হইচই যখন তুঙ্গে, তখনই মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে যায় দীপিকা পাড়ুকোনের নাম।

এভাবে একের পর এক ফাঁস হতে শুরু করে বড়সব তারকার নাম। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো বলিউডের আরও গভীরে ঢুকে তদন্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়।

ভারতীয় বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম বলছে, বর্তমানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর কর্মকর্তাদের নজরে রয়েছেন চলচ্চিত্র জগতের অন্তত ৫০ জন অভিনেতা, প্রযোজক ও পরিচালক। আরও জানা গেছে, বলিউডের প্রথম সারির বেশ কিছু অভিনেতা নাম, যারা ড্রাগ পার্টির আয়োজন করেন, তাদের সঙ্গে ক্রিকেট জগতেরও যোগ আছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস নাউ-এ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, তদন্তকারী সংস্থার নজর পড়ছে কোকো ক্লাবে আয়োজিত একটি অভিজাত পার্টির দিকে। ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর রাতে ক্লাবের পার্টিতে ঠিক কী হয়েছিল, তা জানতে সিসিটিভি ফুটেজ বের করে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো সমন পাঠিয়েছে দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলী খান, শ্রদ্ধা কাপুর, রাকুল প্রীত সিং, সিমোন খামবাট্টা, সেলিব্রিটি ম্যানেজার শ্রুতি মোদি এবং দীপিকার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকে। শকুন বাত্রার আগামী ছবির শুটিংয়ের জন্য বর্তমানে গোয়াতে আছেন দীপিকা পাড়ুকোন। এই মামলায় তার নাম জড়িয়ে পড়ায় মুম্বাইতে চলে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

দীপিকার পর এবার দিয়া মির্জাকেও সমন পাঠানোর কথা শোনা গেছে। দ্রুত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোতে ডাকা হবে দিয়াকে। মাদক পাচারকারী অঙ্কুশ আর অনুজ কেশওয়ানিকে জেরার সময়ই দিয়ার নাম উঠে এসেছে। দিয়ার এই ম্যানেজার অনুজের প্রেমিকা। গত বছর থেকে তিনিই নিয়মিত দিয়াকে মাদক পৌঁছে দিতেন। এমনকি দুবার মাদক পাচারকারীদের সঙ্গে দেখাও করেছিলেন দিয়ার ব্যবস্থাপক। ইতিমধ্যে সমন পাঠানো হয়েছে তাঁকে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!