ফুলের লোভ দেখিয়ে শিশুকে ‘ধর্ষণ’ করলো পুলিশ কনস্টেবল

কদম ফুল পাড়তে গিয়ে খুলনা তেরখাদা উপজেলায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রী (৯) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে রেজাউল ইসলাম (২২) নামের পুলিশের এক কনস্টেবলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর)বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার হওয়া কনস্টেবল রেজাউল ইসলামের বাড়ি খুলনার তেরখাদা উপজেলায়। তিনি নাটোর পুলিশ লাইনসে কর্মরত।

তেরখাদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার রায় ও জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। এ মামলায় কনস্টেবল রেজাউল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শিশুটির বাবা জানান, রেজাউল নাটোরে চাকরি করেন। সম্প্রতি তিনি ছুটিতে বাড়িতে আসেন। তাঁর মেয়ে কনস্টেবল রেজাউলের বাড়ির পাশের ঘেরের পাড়ে কদম ফুল পাড়তে যায়। এ সময় রেজাউল মেয়েটিকে গাছ থেকে ফুল পেড়ে দেওয়ার লোভ দেখান। তারপর ফুসলিয়ে নিজের বাড়িতে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। বাড়ি ফিরে মেয়েটি তার মাকে সব ঘটনা খুলে বলে।

ওসি স্বপন কুমার রায় আরো বলেন, ‘কনস্টেবল রেজাউলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শিশুকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।’

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসির সমন্বয়ক ডা. অঞ্জন কুমার চক্রবর্তী বলেন, ‘শিশুটিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে এখনো রক্তক্ষরণ হচ্ছে। শঙ্কামুক্ত নয় শিশুটি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!