পাকিস্তানের ৪০% পাইলটের বিমান চালানোর সনদ নকল

পাকিস্তানের বিমান চালকদের  নিয়ে এক চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করলেন সে দেশের বিমানমন্ত্রী।

মন্ত্রী জানালেন, ইসলামাবাদের ৪০% পাইলটের লাইন্সেসই ভুয়ো। বিমানমন্ত্রী গুলাম সারওয়ার খান দাবী করে বলেন, বিমান ওড়ানোর ছিঁটেফোঁটাও অভিজ্ঞতা পাইলটদের নেই।

করাচি বিমানবন্দরের কাছে জিন্না গার্ডেন এলাকার মডেল কলোনিতে ২২ মে দুপুরে ভেঙে পড়ে পাকিস্তান এয়ারলাইন্সের একটি বিমান। এর ফলে ১০৭ জনের মৃত্যু হয় এবং চারটি বাড়িও পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছিল। এরপরই এই দুর্ঘটনার জন্য শোক প্রকাশ করে টুইট করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

দুর্ঘটনা কীভাবে ঘটল, তা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়। সেই তদন্তের রিপোর্ট নিয়ে বলতে গিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দেন বিমানমন্ত্রী। সারওয়ার জানান, পাকিস্তানে আপাতত ৮৬০ জন সক্রিয় পাইলট আছেন। তাদের মধ্যে ২৬২ জন নিজেরা বিমান চালনার পরীক্ষায়ও বসেননি। তাদের উড়ান চালানোর ন্যূনতম অভি’জ্ঞতাও নেই। বিমানমন্ত্রীর কথায়, ”প্রায় ৪০ শতাংশ পাইলটের ভুয়ো লাইসেন্স আছে।”

প্রথমে মনে করা হয়েছিল, বিমানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে গিয়েছিল। যান্ত্রিক সমস্যার জেরেই দুর্ঘটনা ঘটে। কিন্তু সেই অভিযোগ এদিন সংসদে দাঁড়িয়ে উড়িয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের বিমানমন্ত্রী। তার কথায়, ”বিমানে কোনও যান্ত্রিক সমস্যা ছিল না।” বরং মানুষের ভুলেই ওই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। মন্ত্রীর কথায়, ”পাইলট এবং কো-পাইলট ও এয়ার কন্ট্রোলার কেউই নিয়ম মানেনি। বিমান চালানোর সময় দুই চালক নিজেদের মধ্যে কথা বলছিলেন। আর পুরো কথোপকথনটাই ছিল করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত।” 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!