দেশে দেশে শিথিল হচ্ছে করোনা লকডাউন

করোনা মহামারিতে ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জারি করা লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। তবে একেক দেশ একেক পন্থায় লকডাউনের কড়াকড়ি শিথিল করছে। কোথাও ফেস মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হলেও কোথাও থাকছে পরামর্শ আকারে।

পবিত্র রমজান মাসে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দুর্দশা কমাতে এবং অর্থনীতির গতি টিকিয়ে রাখতে লকডাউন শিথিল করছে দুই প্রতিবেশী দেশ ভারত ও পাকিস্তান। একমাসেরও বেশি সময় পর শনিবার থেকে ভারতের কিছু এলাকায় খুচরা পণ্যের দোকানগুলো খুলে দেয়া হয়েছে।

শুক্রবার রাতে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কর্মীর সংখ্যা ৫০ শতাংশ কমিয়ে এবং মাস্ক-হ্যান্ডগ্লাভস পরাসহ যথাযথ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার শর্তে খুচরা পণ্য বিক্রয়কেন্দ্রগুলো ফের চালু করা যাবে। তবে মদ ও অন্যান্য অনাবশ্যক পণ্য বিক্রি নিষিদ্ধই থাকছে। এছাড়া, বড় মার্কেট বা শপিংমলগুলোও আগামী ৩ মে পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

ভারতে এ পর্যন্ত ২৪ হাজার ৫০৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে, মারা গেছেন ৭৭৫ জন।

আরেক প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান ৯ মে পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা বাড়ালেও স্বল্পপরিসরে কিছু সংখ্যক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান চালুর অনুমতি দিয়েছে। এছাড়া, করোনা আক্রান্ত বা ঝুঁকিপূর্ণদের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণে শনিবার থেকে ট্র্যাকিং সিস্টেম চালু করেছে দেশটি।

পাকিস্তানের পরিকল্পনা মন্ত্রী আসাদ উমর বলেন, ‘আক্রান্ত ব্যক্তি ও তাদের সম্পর্কিতদের আলাদা করা এই রোগ নিয়ন্ত্রণসহ আমাদের অর্থনীতি সচল করতে এবং মানুষজনকে কাজে যোগ দিতে সহায়তা করবে।’

রমজান মাস উপলক্ষে সিন্ধ প্রদেশ ছাড়া পুরো পাকিস্তানজুড়ে মসজিদে নামাজ আদায়ের নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হয়েছে। করাচিতে এতদিন বেশিরভাগ মসজিদ বন্ধ থাকলেও শুক্রবার থেকে সেগুলো ফের খুলে দেয়া হয়েছে। যদিও চিকিৎসকরা সতর্ক করেছেন, এতে করোনা মহামারির প্রকোপ আরও বেড়ে যেতে পারে।

শনিবার পর্যন্ত পাকিস্তানে মোট ১১ হাজার ৯৪০ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন, মারা গেছেন অন্তত ২৫৩ জন।

সুইডেনের শিশুরা ফুটবল খেলতে পারলেও স্পেনে তাদের ঘর থেকে বের হওয়ার অনুমতি নেই। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যে জিমন্যাসিয়াম, সেলুন ও বউলিং ক্লাব খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যদিও দেশটির হাসপাতালে এখনও ভাইরাসজনিত জরুরি অবস্থা বিরাজ করছে।

ফ্রান্সে সরকার শিশুদের বাইরে পাঠানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্ব পরিবারের ওপর ছেড়ে দিয়েছে। ১৭ মার্চ থেকে পুরো ফ্রান্সে লকডাউন জারি করা হয়। ১১ মে থেকে তা শিথিল হতে শুরু করবে।

স্পেনেও অভিভাবকদের এমন জটিল সিদ্ধান্তের মুখে পড়তে হচ্ছে। কয়েক সপ্তাহ পর রবিবার থেকে শিশুদের মুক্ত বাতাসে যাওয়ার জন্য তারা অনুমতি দেবেন কিনা। যদিও এক্ষেত্রে শিশুদের ‘১-১-১’ নীতি মেনে চলতে হবে। এই নীতি অনুসারে, দিনে এক ঘণ্টার বেশি নয়, ঘর থেকে ১ কিলোমিটার ব্যাসার্ধে এবং একজন প্রাপ্ত বয়স্কের তত্ত্বাবধানে শিশুদের থাকতে হবে।

১২ মার্চ থেকে জারি করা লকডাউন প্রত্যাহারের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে বেলজিয়াম। দেশটির প্রধানমন্ত্রী জানান, ১১ মে থেকে সব দোকান খুলবে, পরের সপ্তাহে খুলবে স্কুল। তবে এক ক্লাসে ১০ জনের বেশি শিক্ষার্থী থাকতে পারবে না। ক্যাফে ও রেস্তোরাঁ বন্ধ থাকবে ৮ জুন পর্যন্ত। গণপরিবহনে যাতায়াতের সময় মাস্ক পরতে হবে।

সংক্রমণ কমতে শুরু করায় ইতালির বিভিন্ন এলাকায় বিধিনিষেধ শিথিল হতে শুরু করেছে। ১৪ এপ্রিল থেকে সীমিত পরিসরে খুলতে শুরু করেছে দোকানপাট। বই, স্টেশনারি, বাচ্চাদের জামা-কাপড়ের দোকান খুলছে। এছাড়া কম্পিউটার ও কাগজপত্র তৈরির কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এবার দেশটি দ্বিতীয় ধাপে লকডাউন শিথিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

চেক রিপাবলিক শুক্রবার মুক্ত যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে।

জার্মানিতে সোমবার (২০ এপ্রিল) ৮০০ বর্গমিটার আয়তনের চেয়ে ছোট দোকানপাট খোলা হচ্ছে। তবে গাড়ি, সাইকেল ও বইয়ের দোকানের ক্ষেত্রে আয়তন সংক্রান্ত কোনও শর্ত আরোপ করা হচ্ছে না। এসব দোকানে প্রবেশ করতে হলে কিছু কড়া নিয়ম মেনে চলতে হবে।

প্রথম দিকে মনে হয়েছিল জাপান সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছে। দেশটি ক্লাস্টার ধরে মোকাবিলার পথ নেয়। কিন্তু শুক্রবার জাপানের চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা সতর্কতা জানিয়ে বলেছেন, জরুরি চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়তে যাচ্ছে এবং সুরক্ষা সরঞ্জাম ও টেস্ট কিটের ভয়াবহ সংকট দেখা দিয়েছে।

জাপানিজ অ্যাসোসিয়েশন ফর অ্যাকুইট মেডিসিনের প্রধান তাকেশি শিমাজু বলেন, আমরা এখন আর স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারছি না। এক্ষেত্রে বলতে পারি যে জরুরি স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়া শুরু হয়ে গেছে। আশঙ্কাজনক রোগীদের স্বাস্থ্য সেবার জন্য আমি বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন।

প্রসঙ্গত, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১ লাখ ৯০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ইউরোপের লক্ষাধিক ও যুক্তরাষ্ট্রে অর্ধলক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২৮ লাখ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!