দিল্লি সহিংসতায় দায়ি জাকির নায়েক, রিপোর্টে জানাল পুলিশ

ডেস্ক রিপোর্ট:

দিল্লি সহিংসতায় মদদ দেয়ার জন্য ইসলাম ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েককে দায়ি করেছে পুলিশ। এমনকি বিদেশ থেকে অর্থের জোগান দেয়ারও অভিযোগ আনা হয়েছে তার  বিরুদ্ধে। দিল্লি পুলিশের করা এ রিপোর্টে এ তথ্য জানা গেছে। 

দিল্লি সহিংসতার ঘটনা তদন্তে নেমেছে পুলিশের স্পেশাল সেল। তাঁদের তদন্তের রিপোর্টেই উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। 

রিপোর্টে বলা হয়েছে, দিল্লি সহিংসতার অন্যতম মদতদাতা খালিদ সাইফির সঙ্গে ভারতে নিষিদ্ধ ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েকের সরাসরি যোগাযোগ ছিল। এমনকি মালয়েশিয়ায় গিয়ে জাকিরের সঙ্গে দেখা করেছিলেন সাইফি। প্রসঙ্গত, সাইফি আবার উমর খালিদ ও তাহির হুসেনের বন্ধু হিসেবে পরিচিত। 

তদন্তে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। 

রিপোর্টে বলা হয়েছে, দিল্লিতে অশান্তি ছড়াতে অর্থের যোগান এসেছে সৌদি আরব ও সিঙ্গাপুরের এক এনআরআইয়ের অ্যাকাউন্ট থেকে। এমনকি  কংগ্রেসের কাউন্সিলর ইশরত জাহানের অ্যাকাউন্টে গাজিয়াবাদ থেকে বেনামী টাকা ঢুকেছিল। ইশরতের মহারাষ্ট্রের আত্মীয়দের অ্যাকাউন্টেও বিভিন্ন সূত্র থেকে টাকা ঢুকেছিল। যা আদপে দিল্লিতে সহিংসতা ছড়াতে ব্যবহৃত হয়েছে বলে অভিযোগ। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে মার্চ মাসেই ইশরতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হাজতে রয়েছে খালিদ সাইফিও। তবে করোনা আবহে তাদের জেরা করা যায়নি।
 
তদন্তে জানা গেছে, সিঙ্গাপুর থেকে ভারতের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মাধ্যমে টাকা এসেছে খালিদের কাছে। সেই সংগঠন চালান উমর খালিদ ও মীরাটের এক ব্যক্তি। মহামারী আবহের জেরে তাদেরও জেরা করা সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে খালিদের পাসপোর্টের তথ্য থেকে এটা পরিস্কার সহিংসতার জন্য অর্থ জোগার করতে সে বিভিন্ন দেশে ঘুরে বেড়াত। সেই সূত্রে জাকির নায়েকের সঙ্গেও দেখা করেছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, খালিদের মোবাইল ফোন খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেখান থেকে দিল্লি হিংসা সংক্রান্ত একাধিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলতে পারে।

উল্লেখ্য, দিল্লি সহিংসতায় আর্থিক মদদ দেয়ার ক্ষেত্রে পিএফআই-এর ভূমিকাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কারণ, সৌদি আরব ও সিঙ্গাপুর, দু্ই দেশেই তাদের শাখা রয়েছে। 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!