দক্ষিণ চীন সাগরে দুটি যুদ্ধজাহাজ পাঠাল যুক্তরাষ্ট্র

চীনের বিরুদ্ধে ভারতের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের দ্বন্দ্বও বহুদিনের। লাদাখ উত্তেজনার মাঝে আজ দক্ষিণ চীন সাগরে দুটি এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার পাঠাল যুক্তরাষ্ট্র। 

আজ শনিবার আবার ওই সাগরেই সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চীন। আর তারই মাঝে যুক্তরাষ্ট্রর এই যুদ্ধজাহাজ পাঠানো নিয়ে ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে পরিস্থিতি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, আজ থেকেই সাউথ চায়না সিতে মোতায়েন থাকবে ইউএসএস রোনাল্ড রেগান ও ইউএসএস নিমিৎস নামে দুটি যুদ্ধবিমানবাহী জাহাজ। এই প্রসঙ্গে শীর্ষ এক মার্কিন সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ”বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এবং এশিয়ায় আমাদের বন্ধু রাষ্ট্রগুলোকে পাশে থাকার বার্তা দিতেই আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” তিনি অবশ্য বলেছেন, চীনের সামরিক অনুশীলনের পাল্টা জবাব দেওয়ার জন্য এই পদক্ষেপ নেয় নি যুক্তরাষ্ট্র।

প্রসঙ্গত, চীন গত সপ্তায়ই জানিয়েছিল যে সাউথ চায়না সিতে তারা সামরিক অনুশীলন করবে। সেই ঘোষনানুযায়ী ১ জুলাই থেকে পাঁচদিন ব্যাপী চীনের এই অনুশীলন চলছে। অনুশীলনটি পরিসেল দ্বীপের কাছে হচ্ছে, যা নিয়ে চীন ও ভিয়েতনামের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে।  শুরু থেকেই ভিয়েতনাম ও ফিলিপিন্সসেখানে এই সামরিক অনুশীলন করার বিরোধিতা করে আসছে। বিষয়টির উপর একই ভাবেি আপত্তি জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

কিন্ত ঠিক কোথায় যুক্তরাষ্ট্র ঐ এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার পাঠিয়েছে, সেটি খবরে স্পষ্ট উল্লেখ করা হয় নি। তবে চীন সাগরে ঐ দুটি এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার ও আরও চারটি যুদ্ধ জাহাজ নিয়ে সামরিক অনুশীলন করবে মার্কিন নৌসেনাও। উল্লেখ্য, দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে একাধিক দেশের মধ্যে দ্বন্দ্ব অনেক দিনের। প্রতিবছর এই সাগরপথে তিন ট্রিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য হয়। চীন একাই সাগরের ৯০ শতাংশ এলাকা তাদের বলে দাবি করে। যদিও এই সাগরে অধিকার আছে বলে দাবি রয়েছে ব্রুনেই, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্স, তাইওয়ান ও ভিয়েতনামের।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!