ত্রাণ দেওয়ার নামে সৌদিতে বাংলাদেশি দূতাবাসের কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজ?

সৌদি আরবের রিয়াদে ত্রাণ দেওয়ার নামে ৬০০-৭০০ বাংলাদেশিকে জড়ো করেছে ঢাকা মেডিকেল সেন্টার নামের একটি প্রতিষ্ঠান। কারফিউয়ের মধ্যে বাংলাদেশিরা জড়ো হলেও পুলিশি বাধায় তারা ত্রাণ পাননি। দূতাবাসের এমন কর্মকাণ্ডে স্যোশাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

জানা গেছে, সৌদি আরবে এখন ২৪ ঘণ্টার অনির্দিষ্টকালের কারফিউ চলছে।সব ধরনের গণজমায়েত নিষিদ্ধ। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া নিজ এলাকার বাহিরে যাওয়া নিষেধ। বাহিরে কাউকে পাওয়া গেলে ১০ হাজার সৌদি রিয়াল জরিমানা। এমন পরিস্থিতিতে খাদ্য সঙ্কটে থাকা প্রবাসীদেরকে রিয়াদের প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানে এসে ফুড বাস্কেট নিয়ে যেতে বলা হয়।

শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) সকালে কারফিউ ভঙ্গ করে ঢাকা মেডিকেল সেন্টার নামে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানটির সামনে জড়ো হয় ৬০০-৭০০ বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে ছিল না সামাজিক দুরত্ব। দূতাবাসের দেওয়া ফুড বাস্কেট নিতে সেখানে হয় দীর্ঘ লাইন।
সহায়তা নিতে আসা প্রবাসীরা বলেন, আমরা চাকরি হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। এই অবস্থায় দূতাবাস থেকে সহায়তা দেওয়া হবে শুনে আবেদন করি। পরে আমাকে ফোন করে ঢাকা মেডিকেল সেন্টার থেকে ফুড বাস্কেট নিয়ে যেতে বললে আজকে সেটি নিতে আসলেও শেষ পর্যন্ত খাদ্য সহায়তা ছাড়াই ফিরে যেতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, আগে শুনেছিলাম বাসায় বাসায় গিয়ে দিয়ে আসবে। কিন্তু এখানে আইন ভঙ্গ করে এতো লোক জড়ো করবে জানলে আসতাম না। তিনি দূতাবাসের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, ২৪ ঘন্টা কারফিউ চলাকালীন শত শত লোক একত্রিত করে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে ত্রাণ বিতরণের সিদ্ধান্ত তারা (দূতাবাস) কিভাবে নেয়।

এ বিষয়ে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ বলেন, আপনার বক্তব্য বুঝতে পেরেছি। সমাধান কি জানতে চেয়ে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়েন তিনি।

বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সচেতন বাংলাদেশি প্রবাসীরা।

 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!