ট্রাম্পের টুইট লুকিয়ে ফেলল টুইটার

নিউইয়র্ক প্রতিনিধি:

শ্বেতাঙ্গদের হাতে অব্যাহত কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার প্রতিবাদে উত্তাল গোটা আমেরিকা। বর্ণবাদ নিরসনের দাবিতে  প্রায়ই রাস্তায় নেমে আন্দোলন করে আসছে সেখানকার জনগন। পুলিশের লাঠি, পেপার স্প্রে, এমনকি করোনা সংক্রমণের ভয় উপেক্ষা করেও পথে নেমেছেন অংসখ্য মানুষ। বিক্ষোভের রাশ টানতে অপারগ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শেষমেশ টুইট করেছিলেন, ‘ভুগতে হবে’ জাতীয় মন্তব্য। ‘হিংসাত্মক’ লিখে সেই বার্তা লুকিয়ে ফেলল টুইটার।

 টুইটার জানাল, ‘হিংসামূলক মন্তব্য’ সংক্রান্ত বিধি ভেঙেছে প্রেসিডেন্টের টুইট। তাই এই ব্যবস্থা।

জানা গেছে বিক্ষোভকারীদের হুমকি দিয়ে গত মঙ্গলবার টুইটটি করেছিলেন ট্রাম্প। এরপরই সেটা সতর্কবার্তা দিয়ে ঢেকে দেয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি।

এর আগে মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়োপোলিসে পুলিশের হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড নিহত হওয়ার পর বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারীদের হুমকি দিয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘লুটপাট চালালে গুলি শুরু হবে’। টুইটটি সহিংসতায় উসকানিমূলক উল্লেখ করে টুইটার কর্তৃপক্ষ সেটি সতর্কবার্তা দিয়ে ঢেকে দিয়েছিল। 

এবারের টুইটে ট্রাম্প লেখেন, ‘আমি যত দিন প্রেসিডেন্ট আছি, তত দিন ওয়াশিংটন ডিসিতে কোনো “স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল” থাকবে না। কেউ যদি চেষ্টা করে, তাহলে ব্যাপক বলপ্রয়োগের মাধ্যমে তাদের প্রতিহত করা হবে।’ এই টুইটের ভাষাকে নিজেদের ‘আক্রমণাত্মক আচরণ নীতির’ পরিপন্থী হিসেবে অভিহিত করেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি সিয়াটল ও ওয়াশিংটনে বিক্ষোভকারীরা দাবি তোলেন, এই দু’টি অঞ্চলকে পুলিশ-মুক্ত জ়োন ঘোষণা করতে হবে। আইনশৃঙ্খলার দায়িত্ব নেবেন এলাকার বাসিন্দারা। কারণ, আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য যে পুলিশ রয়েছে, তারাই তাণ্ডব চালাচ্ছে। সেই প্রসঙ্গেই টুইট করেছিলেন ট্রাম্প।

টুইটটি মুছে দেয়া হয়নি। বরং ‘হিংসাত্মক আচরণের বিরুদ্ধে টুইটার-বিধি’ ভাঙা হয়েছে বলে ট্যাগ করে দেওয়া হয়েছে সেটি। 

প্রাথমিক ভাবে টুইটারের ওই সতর্কতামূলক বার্তাটিই দেখতে পাবেন ব্যবহারকারীরা। সতর্কবার্তার উপরে ক্লিক করলে বেরিয়ে আসবে ট্রাম্পের টুইট। ‘জনস্বার্থের’ কথা মাথায় রেখে টুইটটিকে মুছে ফেলা হয়নি বলে জানিয়েছে সংস্থা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!