ট্রাম্পের অর্থায়ণ বন্ধের সিদ্ধান্তে ডব্লিউএইচও’র দু:খপ্রকাশ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস চলাকালীন সময়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) জন্য যুক্তরাষ্ট্রের অর্থায়ন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে দুঃখপ্রকাশ করেছে জাতিসংঘের সংস্থাটি।

বুধবার জেনেভা থেকে এক ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে ডব্লিউএইচও’র মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রেইসুস বলেন, তারা মার্কিন অর্থায়ন স্থগিতের প্রভাব নিয়ে পর্যালোচনা করছেন। নিরবিচ্ছিন্নভাবে বিশ্ববাসীর জন্য সেবা অব্যাহত রাখা নিশ্চিত করতে অংশীদারদের সাথে কাজ করে যাবেন তারা।

তিনি বলেন, ‘ভয় ও পক্ষপাতিত্ব না করে জনস্বাস্থ্য, বিজ্ঞানের প্রতি এবং বিশ্ববাসীর সেবা করার জন্য আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমাদের লক্ষ্য ও নীতি হচ্ছে সব দেশের জনগণের জন্য সমানভাবে কাজ, এক্ষেত্রে তাদের জনসংখ্যা বা অর্থনীতির আকার বিবেচনা না করা।’

ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন ‘যুক্তরাষ্ট্র আমাদের দীর্ঘদিনের ও উদার বন্ধু। আমরা আশা করি, এটি অব্যাহত থাকবে।’

তিনি উল্লেখ করেন, ‘ডব্লিউএইচও শুধুমাত্র কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াই করছে না। আমরা পোলিও, হাম, ম্যালেরিয়া, ইবোলা, এইচআইভি, যক্ষা, অপুষ্টি, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, মানসিক স্বাস্থ্য এবং আরও অনেক রোগ ও পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্যও কাজ করছি।’

বৈশ্বিক মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সব দেশকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে টেড্রস বলেন, ‘আমরা বিভক্ত হয়ে গেলে ভাইরাসটি আমাদের মধ্যকার ফাটলকে কাজে লাগাতে পারে।’

‘বিশ্ববাসীর সেবা করার জন্য এবং তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্বের বিষয়ে জবাবদিহিতা করতে ডব্লিউএইচও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ,’ যোগ করেন তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বৃহত্তম একক দাতা দেশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মঙ্গলবার এক ঘোষণায় জাতিসংঘ সংস্থাটির বিরুদ্ধে নভেল করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ‘প্রাথকরোনাভাইরাস মহামারি চলাকালীন সময়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) জন্য যুক্তরাষ্ট্রের অর্থায়ন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে দুঃখপ্রকাশ করেছে জাতিসংঘের সংস্থাটি।

বুধবার জেনেভা থেকে এক ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে ডব্লিউএইচও’র মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রেইসুস বলেন, তারা মার্কিন অর্থায়ন স্থগিতের প্রভাব নিয়ে পর্যালোচনা করছেন। নিরবিচ্ছিন্নভাবে বিশ্ববাসীর জন্য সেবা অব্যাহত রাখা নিশ্চিত করতে অংশীদারদের সাথে কাজ করে যাবেন তারা।

তিনি বলেন, ‘ভয় ও পক্ষপাতিত্ব না করে জনস্বাস্থ্য, বিজ্ঞানের প্রতি এবং বিশ্ববাসীর সেবা করার জন্য আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমাদের লক্ষ্য ও নীতি হচ্ছে সব দেশের জনগণের জন্য সমানভাবে কাজ, এক্ষেত্রে তাদের জনসংখ্যা বা অর্থনীতির আকার বিবেচনা না করা।’

ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন ‘যুক্তরাষ্ট্র আমাদের দীর্ঘদিনের ও উদার বন্ধু। আমরা আশা করি, এটি অব্যাহত থাকবে।’

তিনি উল্লেখ করেন, ‘ডব্লিউএইচও শুধুমাত্র কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াই করছে না। আমরা পোলিও, হাম, ম্যালেরিয়া, ইবোলা, এইচআইভি, যক্ষা, অপুষ্টি, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, মানসিক স্বাস্থ্য এবং আরও অনেক রোগ ও পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্যও কাজ করছি।’

বৈশ্বিক মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সব দেশকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে টেড্রস বলেন, ‘আমরা বিভক্ত হয়ে গেলে ভাইরাসটি আমাদের মধ্যকার ফাটলকে কাজে লাগাতে পারে।’

‘বিশ্ববাসীর সেবা করার জন্য এবং তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্বের বিষয়ে জবাবদিহিতা করতে ডব্লিউএইচও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ,’ যোগ করেন তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বৃহত্তম একক দাতা দেশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মঙ্গলবার এক ঘোষণায় জাতিসংঘ সংস্থাটির বিরুদ্ধে নভেল করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ‘প্রাথমিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার’ অভিযোগ তুলে মার্কিন তহবিল স্থগিতের নির্দেশ দেন।

এ ঘোষণার পরপরই জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, এখন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন কমানোর সঠিক সময় নয়। কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ জয়ের জন্য এই সংকটকালীন সময়ে ডব্লিউএইচওকে অবশ্যই সহায়তা করা উচিত।

প্রাথমিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার’ অভিযোগ তুলে মার্কিন তহবিল স্থগিতের নির্দেশ দেন।

এ ঘোষণার পরপরই জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, এখন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন কমানোর সঠিক সময় নয়। কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ জয়ের জন্য এই সংকটকালীন সময়ে ডব্লিউএইচওকে অবশ্যই সহায়তা করা উচিত।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!