জানুয়ারিতে করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরুর সম্ভবনা বাংলাদেশে

করোনা মহামারি ঠেকাতে বিশ্বজুড়ে প্রতিষেধক তৈরির আশার আলো দেখাচ্ছে ফ্রান্সের বহুজাতিক কোম্পানি সানোফি ইন্টারন্যাশনাল এবং ব্রিটিশ গ্লাস্কোস্মিথক্লাইন- জিএসকে’। সব কিছু ঠিক থাকলে জানুয়ারিতেই বাংলাদেশে সানোফি-জিএসকে’র এস প্রোটেইন ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বজুড়েই ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এবং গবেষকরা মরিয়া হয়ে উপায় খুঁজছেন। কয়েকটি প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের প্রস্তুতিও নিচ্ছে। যৌথভাবে এগিয়ে গেছে ফ্রান্সের সানোফি ইন্টারন্যাশনাল এবং ব্রিটিশ গ্লাস্কোস্মিথক্লাইন-জিএসকেও। তাদের তৈরি করা ‘সাবইউনিট প্রোটেন ভ্যাকসিন’ আশা জাগাচ্ছে।

সানোফি-জিএসকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শেষ করেছে। ডিসেম্বরে এর ফল পাওয়া যাবে। এরপর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল বাংলাদেশেও হবে বলে বলে আশা করা হচ্ছে। এ জন্য চলছে প্রস্তুতিমূলক কাজ।

পরীক্ষা সফল হলে ২০২১ সালের মাঝামাঝি থেকে সানোফি-জিএসকে’র ভ্যাকসিন বাজারজাত করা সম্ভব হবে বলেও আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। ভ্যাকসিনটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কো-ভ্যাক্স সুবিধার আওতায় গ্যাভি অ্যালায়েন্সের মাধ্যমে কিনলে প্রতি ডোজের মূল্য হবে এক দশমিক ছয় ডলার।
এদিকে, করোনাভাইরাসের কোনো ভ্যাকসিন (টিকা) বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার চূড়ান্ত ছাড়পত্র পেলে, তা প্রথম ধাপেই বাংলাদেশ পেয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।রোববার বিকেলে রাজধানীর একটি হোটেলে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা এবং ভ্যাকসিন বিষয়ে এক আলোচনা সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘সরকার ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করছে। আপনারা জানেন, কোনো ভ্যাকসিন এখনো বাজারে সেভাবে আসেনি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার যখন ফাইনাল ক্লিয়ারেন্স পেয়ে যাব, তখন আমাদের দেশেও ইনশা আল্লাহ প্রথম ধাপেই ভ্যাকসিন পেয়ে যাব। তবে ডব্লিউএইচওর অনুমোদনের পর।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমাদের সরকারি হাসপাতালে যদি আমরা ভ্যাকসিন দিই, ইনশা আল্লাহ প্রাইভেট হাসপাতালের জন্যও আমরা ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করব।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন,দেশ যদি ভ্যাকসিন পায়,পৃথিবীতে যদি ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয় তবে সবাই পাবে। হয়তো এক সাথে সবাইকে দেয়া সম্ভব হবে না। তবে ধাপে ধাপে সবাই পাবে। এই সময় পর্যন্ত আমাদেরকে ধৈর্য ধরতেই হবে।একসাথে সবাইকে ভ্যাকসিন দেয়ার সক্ষমতা বাংলাদেশ কেন পৃথিবীর কোনো দেশেই নেই। কাজেই প্রথমে যাদেরকে দেয়া প্রয়োজন তাদেরকে দেয়া হবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!