চার দফায় ১৫ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে ওসি প্রদীপ

কক্সবাজারে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় অভিযুক্ত টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশের চার দফায় ১৫ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হয়েছে। এরপর তাকে কক্সবাজার জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
জেলা সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে ওসি প্রদীপকে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এর আগে গত শুক্রবার (২৮ আগস্ট) একই আদালতে প্রদীপ কুমার দাশ, পরিদর্শক (বরখাস্ত) লিয়াকত আলী, এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিতের তৃতীয় দফায় তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এদের মধ্যে লিয়াকত ও নন্দ দুলাল আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেও ওসি প্রদীপ আদালতে জবানবন্দি দিতে রাজি হননি। ফলে তিনদিনের রিমান্ড শেষে সর্বশেষ গত সোমবার (৩১ আগস্ট) তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব ওসি প্রদীপের জন্য আবার রিমান্ড আবেদন করলে আদালত একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সেই রিমান্ডের সময় শেষ হয়েছে মঙ্গলবার।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) খায়রুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ১৫ দিন রিমান্ড শেষ হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী আর রিমান্ড চাওয়া যায় না, তাই নিয়ম মতে আজ আমরা রিমান্ড আবেদন না করে আদালতে হাজির করেছি।
গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় গত ৫ আগস্ট কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস। এতে নয়জনকে আসামি করা হয়। এরপর অভিযুক্ত সাত পুলিশ সদস্য আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এ মামলায় পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষী ও তিন এপিবিএন সদস্যসহ আসামি করা হয়েছে এ পর্যন্ত মোট ১৩ জনকে ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!