ঘুষ দেয়ার কথা স্বীকার করলেও নিজেকে নির্দোষ দাবি এমপি পাপুলের

ডেস্ক রিপোর্ট:

মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেপ্তার লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল কুয়েতে একজন আমলাসহ তিনজনকে ২১ লাখ দিনার অর্থাৎ ৫৭ কোটি ৫৪ লাখ বাংলাদেশি টাকা ঘুষ দিয়েছেন। দেশটির তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে বিষয়টি স্বীকার করেছেন তিনি। 

এমনকি ঘুষ গ্রহণকারীদের নামও জানিয়েছেন তিনি। এরা হলেন- কুয়েতের একটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি, অন্যজন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক আমলা আর শেষজন দেশটির এক নাগরিক। আর পাপুলকে মদদ দিয়েছেন দেশটির অন্তত সাতজন বিশিষ্ট নাগরিক। ওই সাতজনের মধ্যে কুয়েতের সাবেক ও বর্তমান তিন এমপিও রয়েছেন। 

ঘুষ দেয়ার কথা স্বীকার করলেও পাপুল নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। পাবলিক প্রসিকিউটরের কাছে তদন্তের সময়ে পাপুল বক্তব্য দেয়ার সময় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। আরব টাইমস এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

কর্মকর্তাদের ঘুষ দেয়ার বিষয়ে পাপুল পাবলিক প্রসিকিউটরকে জানান, তার কোম্পানিতে ৯ হাজার মানুষ কাজ করে এবং কুয়েতে কাজ করার জন্য একটি বৈধ আদেশ আছে। তার দাবি, তিনি যে কাজ করেছেন সেটির সফলতা নিয়ে কেউ কোনও অভিযোগ করতে পারবে না। কিন্তু কুয়েতের কিছু কর্মকর্তা তার কাজ আটকে দেয়ার চেষ্টা করেছিল। তাদের ঠেকানোর জন্যই তিনি ঘুষ দিয়েছেন।

পাপুল আরও বলেন, তার কোম্পানিতে যে ধরনের ইকুইপমেন্ট আছে সেটি আর কোনও কোম্পানির কাছে নেই এবং তিনি গুণগতমান সম্পন্ন সেবা প্রদান করেছেন, কিন্তু সমস্যা হচ্ছে এখানকার কিছু কর্মকর্তা।

এদিকে প্রসিকিউটর অফিসের একটি সূত্র জানায়, এর সঙ্গে অনেক ব্যক্তি জড়িত। এদের সবার দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করার জন্য অনেক সময়ের প্রয়োজন। পাবলিক প্রসিকিউটরের অফিস মনে করে এই অবৈধ প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত সবার দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করার জন্য মামলাটি ফৌজদারি আদালতে প্রেরণ করা উচিত।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জুন মানবপাচার, ভিসা জালিয়াতি ও অর্থপাচারের অভিযোগে সংসদ সদস্য পাপুলকে কুয়েত সিটির মুশরিফ এলাকার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে সেদেশের সিআইডি। আগামী ৬ জুলাই এমপি পাপুলের বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগের বিষয়ে শুনানির কথা রয়েছে। পাপুল কাণ্ডে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যাসিসেন্ট আন্ডার সেক্রেটারি মেজর জেনারেল মাজেন আল-জারাহকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

পাপুলকে আর্থিক লেনদেনে সহায়তা ও ঘুষ গ্রহণের জড়িত থাকার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এ সিদ্ধান্ত নিয়ে কুয়েতি উপ প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আনাস আল সালেহ একটি আদেশ জারি করেছেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!