গণধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল ভারতের উত্তর প্রদেশ

ভারতের উত্তর প্রদেশ ধর্ষণের প্রতিবাদে উত্তাল । এক দলিত নারী গণধর্ষণে মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছে দেশটির সাধারণ মানুষ। বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে, উত্তর প্রদেশের বলরামপুরের ২২ বছর বয়সী ওই তরুণী একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) কাজ থেকে আর বাড়ি ফেরেননি বলে অভিযোগ তার পরিবারের।

পরিবার জানায়, ‘অনেক খোঁজাখুজির পর সন্ধান মেলেনি ওই যুবতীর। পরে ধর্ষণের পর অজ্ঞান অবস্থাতেই তাকে রিক্সায় তুলে বাড়ি পাঠিয়ে দেয় দুষ্কৃতিকারীরা। হাসপাতালে নেয়ার পথেই মারা যান তিনি। ওই নারীর পা ও স্পাইনাল কর্ড ভাঙা অবস্থায় পাওয়া গেছে বলে জানান তার স্বজনরা’।

ওই তরুণীর মায়ের অভিযোগ, ‘মেয়েটিকে ধর্ষণের আগে কোনও ইঞ্জেকশন দেয়া হয়’।

এই ঘটনায় ইতোমধ্যে বালারামপুর থেকে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এর আগে ভারতজুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হাথরস নামের আরেক দলিত তরুণীর মৃত্যু। জানা গেছে, গণধর্ষণের শিকার ওই তরুণীর মরদেহ পরিবারকে না দিয়ে রাতারাতি সৎকার করে পুলিশ। প্রভাবশালী চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে হাথরসকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভারতে উত্তর প্রদেশের আদিত্যনাথ সরকার হাথরসের পরিবারের জন্য পঁচিশ লাখ রুপি অনুদান ঘোষণা করেছে।

একের পর এক ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের কঠোর বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেছে সাধারণ মানুষ। নারীদের নিরাপত্তার দিতে ব্যর্থ হওয়ায় নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে স্লোগান দেন অনেকে। উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন স্থানে জ্বালাও-পোড়াও কর্মসূচি হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জল কামান এবং লাঠি চার্জ করেছে পুলিশ।

এরমধ্যেই, হাথরসে ১৯ বছর বয়সী ওই দলিত তরুণীর ধর্ষণের ঘটনায় যে বিক্ষোভ চলছে তাতে সমর্থন দিয়েছে বিরোধী দল কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার ১০ অক্টোবর তরুণীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াংকা গান্ধীর উত্তর প্রদেশ যাওয়ার কথা রয়েছে ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!