কৃষ্ণাঙ্গ ব্রুকস হত্যা : মৃত্যুদণ্ড হতে পারে সেই পুলিশ কর্মকর্তার

নিউইয়র্ক প্রতিনিধি:

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টায় কৃষ্ণাঙ্গ রেশার্ড ব্রুকস হত্যার ঘটনায় গুলিবর্ষণকারী পুলিশ কর্মকর্তা গারেট রোলফের বিরুদ্ধে হত্যা ও হামলার অভিযোগ আনা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে ১১টি অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন এই কর্মকর্তা।
এঘটনায় ইতিমধ্যেই গারেট রোলফ বরখাস্ত রয়েছেন।

স্থানীয় সময় বুধবার (১৮ জুন) আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিবিসির প্রতিবেদন মতে, মামলার সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলের অপর কর্মকর্তা দেভিন ব্রসনান মামলার সাক্ষী হিসাবে সাক্ষ্য দেবেন।

এর আগে আরেক কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের রেশ না কাটতেই শুক্রবার রাতে স্থানীয় সময় সাড়ে ১০টার দিকে ওয়েন্ডিজ নামে একটি ফাস্টফুড রেস্তোরাঁর সামনে রেশার্ড ব্রুকসকে হত্যা করা হয়। রেশার্ড ব্রুকসকে গুলি করে হত্যার একটি ভিডিও এরইমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্লাটফর্মে ভাইরাল হয়েছে।

গত শুক্রবার রাতে স্থানীয় সময় সাড়ে ১০টার দিকে ওয়েন্ডিজ নামে একটি ফাস্টফুড রেস্তোরাঁর সামনে রেশার্ড ব্রুকসকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। রেশার্ড ব্রুকস নামের ২৭ বছর বয়সী ওই কৃষ্ণাঙ্গ যুবক একটি ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্টের বাইরে নিজের গাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলেন। এই ঘটনায় ওই ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্টের কর্মীরা অভিযোগ করে যে, ব্রুকসের গাড়ি অন্য ক্রেতাদের পথে বাধা তৈরি করছে। এমন অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ব্রুকসকে আটকের চেষ্টার সময় প্রতিরোধ করলে পুলিশ তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে। সেখানেই গুলিবিদ্ধ হন ব্রুকস। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পর মারা যান ব্রুকস।

ভিডিওতে দেখা ব্রুকসের সঙ্গে দুই পুলিশকর্মীকে ধস্তাধস্তি করতে দেখা গেছে। পুলিশের হাত থেকে পালাতেও দেখা গেছে ব্রুকসকে। পরে তাকে লক্ষ্য করে পুলিশ গুলি ছোড়ে। ভিডিওটিতে পুলিশের গুলির শব্দ শোনা গেছে।

এ ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আটলান্টা পুলিশ প্রধান এরিকা শিল্ডস পদত্যাগ ঘোষণা করেন। সেই সাথে পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ব্রুকসকে যে অফিসার মেরেছিলেন (গ্যারেট রোলফ) তাকে শনিবার বরখাস্ত করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত দ্বিতীয় কর্মকর্তাকে প্রশাসনিক দায়িত্বে স্থানান্তর করা হয়েছে। ওই কর্মকর্তা হলেন ডেভিন ব্রনসান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!