কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী দলের প্রধান ভারতীয় বাহিনীর গুলিতে নিহত

ভারতের নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের গুলিতে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান কমান্ডার রিয়াজ নাইকুসহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

বুধবার (৬মে) সকালের দিকে কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় এনকাউন্টারে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার বেইঘপুরা এলাকায় সেনাবাহিনী এবং পুলিশের সন্ত্রাস-বিরোধী যৌথ অভিযানে নিহত হয়েছেন নাইকু।

গত কয়েকদিন ধরেই কাশ্মীরে নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে স্বাধীনতাকামী মুজাহিদ বাহিনীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনীর মেজর-কর্নেলসহ একাধিক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে কাশ্মীরে পৃথক তিনটি যৌথ অভিযান শুরু করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। বুধবার সকালের দিকে পুলওয়ামার প্যাম্পোর এলাকায় অন্য একটি অভিযানে আরও দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ভারতীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে।

পুলওয়ামা জেলার বেইঘপুরা এলাকায় হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান কমান্ডার রিয়াজ নাইকুর অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর দেশটির সেনাবাহিনী যৌথ অভিযানে যায়। এ সময় কাশ্মীর উপত্যকার অন্তত ১০টি জেলায় মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়।

এর আগে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী হিজবুল মুজাহিদীনের এই প্রধানের মাথার দাম ১২ লাখ রুপি নির্ধারণ করা হয়। হিজবুল প্রধানের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান টার্গেটে ছিলেন তিনি। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের সাবেক মহাপরিচালক এসপি ভেইড বলেন, ২০১৬ সালের জুলাইয়ে এনকাউন্টারে হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর নাইকুকে মোস্ট ওয়ান্টেড ঘোষণা করা হয়েছিল।

এর আগে গত মাসে কাশ্মীর উপত্যকায় স্বাধীনতাকামীদের সঙ্গে সংঘর্ষে ভারতীয় সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাসহ অন্যান্য নিরাপত্তাবাহিনীর অন্তত ২২ সদস্য নিহত হয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!