কাতারে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পেলো প্রবাসী বাংলাদেশি

গত ফেব্রুয়ারী মাসে কাতারের সীমান্তবর্তী এলাকায় আলখোরে এক অনাকাঙ্ক্ষিত সড়ক দুর্ঘটনায় লক্ষীপুরের মনির হোসেন নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি দু’টি পা হারিয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করেন। এসময় তাকে চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে রাজধানী দোহা থেকে হেলিকপ্টার ও অ্যাম্বুলেন্স ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাৎক্ষণিক সেবা প্রদান করে।

পরে আহত মনির হোসেনের বাংলাদেশি স্পনসর লাইফ ভিশন ট্রেনিং এন্ড কন্টাক্টিংয়ের চেয়ারম্যান মোঃ হারুনুর রশিদের সার্বিক সহযোগিতায় দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়ির মালিক পক্ষের সাথে কোন মামলা ছাড়াই আলোচনা সাপেক্ষে কাতারি চার লাখ পঞ্চাশ হাজার রিয়াল যা বাংলাদেশি টাকায় ১ কোটি ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ বাবদ ক্ষতিগ্রস্ত মনির হোসেন কাছে ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেওয়া হয় ।

লাইফ ভিশন ট্রেডিং এন্ড কন্টাক্টিংয়ের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ জানান, আমার কোম্পানিতে ৫০০ কর্মী কর্মরত আছেন। তাদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিতে আমি বদ্ধপরিকর। চলমান মহামারীতে কর্মীদের বড় ধরনের একটি সুবিধা প্রদান করেছি। তাছাড়া মনির হোসেনের সব ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করতে সাধ্যমত চেষ্টা করেছি এবং সফলও হয়েছি। যার ফলে বাংলাদেশের টাকায় ১ কোটি ৫ লাখ টাকা তুলে দিতে পেরেছি। কর্মীদের কল্যাণে প্রতিটি কোম্পানির মালিক পক্ষকে এভাবে এগিয়ে আসা উচিত বলে জানান তিনি।
অন্যদিকে, বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড.মুস্তাফিজুর রহমান জানান, মালিক পক্ষের প্রচেষ্টার কারণে ভালো একটি ক্ষতিপূরণ পেতে সক্ষম হয়েছে ভুক্তভোগী এবং আগামী অর্থবছরে দূতাবাস থেকে এক কালিন নগদ অর্থ প্রদান করার আশ্বাস প্রদান করছি আমি।

কোম্পানির মালিক, কাতার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও বাংলাদেশ দূতাবাসের সব ধরনের সহযোগিতা কারণে বেঁচে আছি তাই তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ বলে জানান আহত মনির হোসেন।

কোম্পানির মালিক হারুনুর রশীদকে এমন সাহসী পদক্ষেপ নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মনিরের পাশে দাঁড়ানো জন্য বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান কাতার চট্টগ্রাম সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক এম, নাছির উদ্দিন চৌধুরী ও সিনিয়র ব্যক্তিত্ব শহীদ মিয়া।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!