করোনা চুক্তিতে পৌঁছতে ব্যর্থ ইইউ

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ইউরোজোনের সদস্যরাষ্ট্রগুলোর অর্থনীতি বাঁচাতে একটি একক পরিকল্পনায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হলেন অর্থমন্ত্রীরা৷ ১৬ ঘণ্টা পর বুধবার সকালে আলোচনা স্থগিত করেন ইউরোগ্রুপের প্রধান মারিও সেন্তেনো৷

বৃহস্পতিবার আবার আলোচনা শুর হবে৷ ইউরোগ্রুপের প্রধান জানান, একটি চুক্তির প্রায় কাছাকাছি পৌঁছানো গেছে৷ তবে এখনও কিছু বিষয়ে একমত হতে হবে৷

আলোচনা শুরুর আগে ইটালি আর স্পেনের মতো করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলো ‘করোনাবন্ড’ ছাড়ার প্রস্তাব করেছিল৷ তারা বলছে, ইউরোজোন থেকে যে ঋণ তারা নিতে চায় তার গ্য়ারান্টি পুরো ইউরোজোনকে নিতে হবে৷

আর জার্মানি ও নেদারল্য়ান্ডসের প্রস্তাব ছিল, সংকটের সময় সহায়তার জন্য় ইউরোজোনে আগে থেকেই চালু থাকা ‘ইউরোপিয়ান স্ট্যাবিলিটি মেকানিজম’ ইএসএম ব্যবহার করা৷

কিন্তু ইএসএম-এর তহবিল ছাড়ের সময় আর্থিক সংস্কার বিষয়ক কঠোর শর্ত জুড়ে দেয়া হয় বলে তা মানতে রাজি হয়নি ইটালি৷ তারা বলছে, করোনার ক্ষতির কারণ তারা নিজেরা নয়৷ এছাড়া করোনা মোকাবিলায় ইটালির নেয়া বিভিন্ন কৌশল থেকে শিক্ষা নিয়েছে অন্য় দেশগুলো৷

জার্মানি অবশ্য ইএসএম-এর শর্ত শিথিলেরও প্রস্তাব দিয়েছিল৷ তবে তা কতখানি হতে পারে, তা জানায়নি৷

এই অবস্থায় ইউরোজোনের অর্থমন্ত্রীদের আলোচনায় করোনাবন্ড আর ইএসএম-এর মাঝামাঝি একটি আপোশমূলক চুক্তির চেষ্টা করা হয়৷ জার্মানি, ফ্রান্স ও স্পেন এই চুক্তিতে একমত হলেও ইটালি ও নেদারল্য়ান্ডস এখন পর্যন্ত তা প্রত্যাখ্যান করেছে৷

সব ধরনের কোম্পানি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ১১০ কোটি ডলারের ঋণ দিচ্ছে জার্মান সরকার৷ দুর্যোগকালীন এই পরিস্থিতি সামাল দিতে মোট ৫৩ হাজার ৬০০ কোটি ডলারের তহবিল রয়েছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক৷ কোম্পানিগুলোর আর্থিক স্বচ্ছলতা বজায় রাখতে দেয়া হচ্ছে কর-ছাড়৷ দেরিতে ঋণ পরিশোধে গুণতে হবে না জরিমানা৷ প্রতিষেধক আবিষ্কারের জন্য শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটকে দেয়া হবে সাড়ে ১৪ কোটি ইউরো৷