করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির অনুমোদন দিলো যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস চিকিৎসায় রক্তের প্লাজমা ব্যবহারের জরুরি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। দেশটির ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এ প্লাজমা ব্যবহারের অনুমতি দিয়ে জানায়, এর ক্ষতিকর দিকগুলোর চেয়ে উপকার অনেক বেশি।

এফডিএ’র তরফ থেকে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে ৭০ হাজারের বেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে কনভ্যালসেন্ট প্লাজমা চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। যারা ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে ওঠেছেন তাদের শরীর থেকে প্লাজমা সংগ্রহ করা হয়। এ ট্রায়ালে দেখা গেছে, এর উপকারিতাই বেশি।

প্লাজমা চিকিৎসার অনুমোদনের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আজ চীনের ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমি এক ঐতিহাসিক পদক্ষেপের ঘোষণা দিচ্ছি। আজকের এই পদক্ষেপ ভাইরাসটির চিকিৎসা নাটকীয়ভাবে এগিয়ে নেবে।

ট্রাম্প আরও বলেন, আমি অনেক আগে থেকেই এ চিকিৎসা পদ্ধতির অনুমোদন দেওয়ার চেষ্টা করে আসছিলাম। রক্তের প্লাজমা ব্যবহার করে চিকিৎসায় মৃত্যুর হার ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত কমে যেতে পারে।

উল্লেখ্য, এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস চিকিৎসায় কোনো নির্দিষ্ট ওষুধ বা পদ্ধতি আবিষ্কৃত হয়নি। তবে শত বছরের পুরনো চিকিৎসা পদ্ধতি প্লাজমা থেরাপির ব্যাপক ব্যবহার শুরু হয়েছে বিভিন্ন দেশে।
এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ইয়ান লিপকিন প্লাজমা চিকিৎসা সম্পর্কে জানিয়েছিলেন, ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত এটিই কার্যকর পদ্ধতি। এক ব্যক্তির কাছ থেকে নেওয়া প্লাজমা দিয়ে তিনজন রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া যায়। এটি সাশ্রয়ী ও সহজ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!