করোনায় দক্ষিণ এশীয়দের মারা যাবার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি

ব্রিটেনে চালানো এক জরিপে দেখা গেছে যে, করোনাভাইরাস আক্রান্ত হলে দক্ষিণ এশীয় বংশোদ্ভূতদেরই মারা যাবার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি, এবং তার একটি কারণ ডায়াবেটিস।

জরিপে বলা হচ্ছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে শ্বেতাঙ্গদের তুলনায় দক্ষিণ এশীয়দের মারা যাবার সম্ভাবনা ২০ শতাংশ বেশি।  ব্রিটেনের অন্য যেসব জাতিগত সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী আছে তাদের কারোরই মৃত্যুর সম্ভাবনা দক্ষিণ এশীয়দের চেয়ে বেশি নয়।

জরিপে দেখা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার পর যাদের হাসপাতালে চিকিৎসা নেবার দরকার হয়েছে – তাদের প্রতি ১ হাজার দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যে গড়ে ৩৫০ জন মারা যায়। কিন্তু শ্বেতাঙ্গদের ক্ষেত্রে এই হার হচ্ছে গড়ে ২৯০ জন।  অধ্যাপক ইউয়েন হ্যারিসন বলছেন, “করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে দক্ষিণ এশীয়দের মারা যাবার ঝুঁকি নিশ্চিতভাবেই বেশি, কিন্তু কৃষ্ণাঙ্গদের ওপর আমরা সেরকম প্রভাব দেখছি না।“

অধ্যাপক হ্যারিসন বলেছেন, হাসপাতালে আসা কোভিড-১৯ আক্রান্ত দক্ষিণ এশীয়দের দিকে তাকালে দেখবেন শ্বেতাঙ্গদের তুলনায় চিত্রটা একেবারেই অন্যরকম” । দক্ষিণ এশীয় রোগীদের বয়স গড়ে ১২ বছর কম, এটা একটা বিরাট পার্থক্য।  ফুস্ফুসের রোগ বা অন্যান্য রোগ দেখা না গেলেও তাদের  ডায়াবেটিস অনেক বেশি।“

দক্ষিণ এশীয় কোভিড-১৯ রোগীদের মধ্যে ৪০ শতাংশেরই টাইপ ওয়ান বা টাইপ টু ডায়াবেটিস আছে বলে দেখা যায়। কিন্তু শ্বেতাঙ্গদের ক্ষেত্রে এই হার মাত্র ২৫ শতাংশ। কৃষ্ণাঙ্গ ও এশিয়ানদের (বাংলাদেশি, ভারতীয় ও পাকিস্তানি) ডায়াবেটিস এবং হৃদরোগে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি বেশি বলে ব্রিটেনে অন্য এক জরিপে দেখা গেছে।

সবশেষ জরিপে যুক্তরাজ্যের ২৬০টি হাসপাতালে প্রায় ৩৫ হাজার কোভিড-১৯ রোগীর উপাত্ত পরীক্ষা করে বলা হয়, করোনাভাইরাসে মারা যাবার ঝুঁকির পেছনে একটা কারণ হচ্ছে ডায়াবেটিস। তবে কেবল ডাইবেটিস নয়, গবেষকরা বলছেন – দারিদ্র্য থেকে শুরু করে জিনগত পার্থক্য পর্যন্ত অন্য কারণগুলোও দায়ী হতে পারে। ভিটামিন ডি-র অভাব এবং হৃদরোগও কোভিড-১৯এ মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ায়?

কিন্তু লন্ডনের কুইন মেরি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরিপে বলা হয়, কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যাবার পেছনে ওজন, দারিদ্র্য, এবং এক বাড়িতে অনেক লোকের বসবাসের মতো অনেক কারণ সক্রিয়। গবেষনায় আরো বলা হয়েছে যে,  দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যেও সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে বাংলাদেশিরা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!