করোনার চিকিৎসায় আজগুবি পরামর্শ ট্রাম্পের, বিশ্বজুড়ে সমালোচনা


করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় নিজস্ব চিকিৎসা পদ্ধতি বাতলে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের পরামর্শ দিয়েছেন, করোনার চিকিৎসায় ইনজেকশন আকারে জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে। আর রোগীর দেহে আল্ট্রা ভায়োলেট রে ব্যবহারেরও প্রস্তাবও দিয়েছেন তিনি। এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

চিকিৎসকরা মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই পরামর্শের তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন, এটা একেবারেই ভ্রান্ত ধারণা এবং মেডিক্যাল শাস্ত্র কখনই এ ধরনের পরামর্শ সমর্থন করে না।

ট্রাম্প বলেছেন, শরীরে জীবাণুনাশক অথবা অতিবেগুনী রশ্মির প্রবেশকে করোনাভাইরাসের চিকিৎসার উপায় হিসাবে নিয়ে গবেষণা হওয়া উচিত।

জীবাণুনাশক করোনাভাইরাসকে মেরে ফেলতে পারে। তবে এটি শুধুমাত্র যেসব পণ্য মানুষ স্পর্শ করে সেগুলোতে অ্যান্টি মাইক্রোবায়াল প্রোপার্টিজ ব্যবহার করে সেসব পণ্যকে ভাইরাসমুক্ত করার জন্য ভালো ধারণা।

বেশ কিছু গবেষণা আছে যে, সাধারণভাবে সূর্যের আলোতে সরাসরি এলে কিছু ভাইরাস দ্রুত মারা যেতে পারে। কিন্তু করোনাভাইরাসকে মেরে ফেলার জন্য অতিবেগুনী রশ্মি কতক্ষণ প্রয়োগ করতে হবে সেব্যাপারে কোনও তথ্য নেই। যে কারণে চিকিৎসকরা বলছেন, করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচার অন্যতম উপায় হাত, শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রতঙ্গ ঘনঘন পরিষ্কার করা এবং মুখ, চোখ, নাক স্পর্শ না করা।

হোয়াইট হাউসে করোনা ভাইরাস টাস্কফোর্সের ব্রিফিংয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের এক কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। তাতে বলা হয়, সূর্যের আলো ও অতিমাত্রায় তাপের সংস্পর্শে এলে করোনা ভাইরাস অতিদ্রুত দুর্বল হয়ে পড়ে। এতে আরও বলা হয়, গবেষণায় দেখা গেছে লালা বা শ্বাস-প্রশ্বাসের তরলে থাকা ভাইরাসকে পাঁচ মিনিটের মধ্যে মেরে ফেরতে ব্লিচ ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়া আইসোপ্রপাইল অ্যালকোহল আরও দ্রুত করোনা ভাইরাসকে কুপোকাত করতে পারে।

গবেষণার এ ফলাফলের উপর আস্থা রেখেই ট্রাম্প বলেন, আর সেজন্যই আমরা দেহকে অতিমাত্রায় তপ্ত করে কিংবা অতিরঞ্জনরশ্মি বা শক্তিশালী আলো ব্যবহার করে করোনা মোকাবেলা করতে পারি।

বিবিসি বলছে, এই ভাইরাস সংক্রমিত ব্যক্তির হাচি-কাশির মাধ্যমে বেরিয়ে আসা কণা শ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গে অন্য ব্যক্তির শরীরে প্রবেশ করে। শরীরে প্রবেশের পরপরই এটি বংশ বৃদ্ধি করে এবং দ্রুত গতিতে বিস্তার ঘটাতে থাকে। সেখান থেকে ফুসফুসের মধ্যে সংক্রমণ ঘটায়।

চিকিৎসকরা বলছেন, এই ভাইরাসকে শরীরের ভেতরে ধ্বংস করতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জীবাণুনাশক পুশ করার যে পরামর্শ দিয়েছেন; তাতে মানুষের মৃত্যুর ঝুঁকি বৃদ্ধি পাবে। এমনকি জীবাণুনাশক পুশ করা হলেও তা ভাইরাস পর্যন্ত পৌঁছাবে না। একইভাবে শরীরে এই ভাইরাস ঢুকে পরার পর ত্বকের ওপর অতিবেগুনী রশ্মি প্রয়োগ করা হলেও তাতে কোনো কাজ হবে না।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!