করোনার উৎপত্তি কীভাবে জানালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

চীনের উহানে প্রদেশের জীবাণু অস্ত্র গবেষণাগার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)। সংস্থাটি বলছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের সব প্রমাণাদি বিশ্লেষণ করে তারা নিশ্চিত হয়েছেন জৈব গবেষণাগার নয় বাদুড়ের মাধ্যমেই এর উৎপত্তি হতে পারে।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র ফেডেলা শায়েব বরাতে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। জেনেভায়এক ভার্চ্যুয়েল নিউজ ব্রিফিংয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র ফেডেলা শায়েব বলেন, ‘প্রাপ্ত প্রমাণাদি অনুযায়ী ভাইরাসটি প্রাণী থেকেই মানুষে ছড়িয়েছে। এটা কোনো গবেষণাগারে তৈরি কিংবা সেখান থেকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়নি। সম্ভবত এই ভাইরাস বাদুড় থেকেই বিস্তার লাভ করেছে।’

করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর থেকেই চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে এটি গবেষণাগারে তৈরি তাদের একটি জীবাণু অস্ত্র। অস্ত্রের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য সাধারণের মধ্যে জীবাণু ছেড়ে দিয়েছে চীন কর্তৃপক্ষ। তারপরই তা গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে।

প্রাণঘাতি এ ভাইরাসটি বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ার বিতর্কে শামিল হয়েছেন বিশ্বের অনেক ব্যক্তিত্ব। এইচআইভির আবিষ্কারক নোবেল বিজয়ী ফ্রান্সের এই ভাইরোলজিস্ট লুক মন্টাগনিয়ার বলেছেন, এই ভাইরাসটির গতিপ্রকৃতিই বলে এটি ল্যাবে তৈরি। উহানের ল্যাবেই করোনাভাইরাস তৈরি হয়েছে। ওই ল্যাবে চীনা গবেষকরা এইচআইভির ভ্যাকসিন তৈরিতে নানারকম ভাইরাস ব্যবহার নিয়ে গবেষণা করছিল তারা। কোনো দূর্ঘটনাবশত হয়তো এটি ল্যাব থেকে বাইরে এসেছে।

এদিকে চীনের বিরুদ্ধে করোনা ছাড়ানের অভিযোগ জানিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, চীনের মধ্যাঞ্চলের হুবেই প্রদেশের সরকারি গবেষগার থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি কিনা তা খতিয়ে দেখছে তার প্রশাসন। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা চীনের প্রতি পক্ষপাত করছে, এই অভিযোগে ট্রাম্প সংস্থাটিকে দেওয়া মার্কিন অনুদান বন্ধ করে দিয়েছেন।

অবশ্য জীবাণু অস্ত্র ছড়িয়ে মানুষকে আক্রান্ত করার অভিযোগ পুরোনো। ১৯৭৮ থেকে ১৯৮০-৮১ সাল পর্যন্ত কিউবায় ডেঙ্গুজ্বরে কয়েক লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল। এ সময় কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রো ডেঙ্গুজ্বরকে যুক্তরাষ্ট্রের জীবাণু আক্রমণ বলে অভিযোগ করেছিলেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.