করোনাভাইরাস, যুক্তরাষ্ট্র

৫০টি অঙ্গরাজ্যে একই সাথে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মৃত মানুষের সংখ্যায় ইতিমধ্যেই ইতালিকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ৫৫৪ জনের। আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে ৫ লাখ ৩৩ হাজার ৪৭০ জন। সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৩০ হাজার ৫২৩ জন। আর গত ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ১৮শত ৩০ জন মানুষ। সূত্র- ওয়ার্ল্ডোমিটার।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনস ইনস্টিটিউট ফর হেলথ এক জরিপে জানিয়েছে যে, আমেরিকা এখন করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সর্বোচ্চ মন্দ অবস্থায় আছে। আর বর্তমান লকডাউন ও সামিজিক দূরত্ব যদি মে মাস পর্যন্ত চালু রাখা হয় তবে আগস্ট মাস নাগাদ মৃতের সংখ্যা হবে ৬১ হাজার ৫৫০ জন। আর যদি লকডাউন শিথিল করে দেওয়া হয় তবে এ সংখ্যা আরো বেশি হবে। যদিও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কোনো কোনো স্টেটে ব্যবসা- বাণিজ্য খুলে দেওয়ার কথা বলছেন।

করোনাভাইরাস অ্যান্টিবডিঃ নিউইয়র্কে ৩০০ জন করোনায় আক্রান্ত রোগীর উপর করোনাভাইরাস অ্যান্টিবডি পরীক্ষা শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই দিনে অন্তত দুই হাজার জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডি টেস্ট করা হবে। পরিস্থিতির উন্নতি হলে লকডাউন তুলে স্বাভাবিক জীবন যাপনে ফিরে আসতে চায় নগরবাসী।। তবে এখনো মনে করা হচ্ছে মে মাসের শেষ পর্যন্ত সবকিছু বন্ধই থাকবে।

এদিকে শনিবার দেশের ৫০টি অঙ্গরাজ্যে একই সাথে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নিউইয়র্কের পর সর্বোচ্চ নিউজার্সিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ হাজার ১৮৩জন। এখানে আক্রান্ত ৫৮হাজার ১৫১ জন। অঙ্গরাজ্য মিশিগানে মারা গেছেন ১হাজার ৩৯২ জন। সেখানে আক্রান্ত ২৩ হাজার ৯৯৩ জন।

বিশ্বে এপর্যন্ত করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ ৯২ হাজার ৭৮২ জনে। মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ নয় হাজার ৭৮৫ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪ লাখ ১১ হাজার ৫১৫ জন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!