উ. কোরিয়ার কিম জং উনের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক!

একটি অস্ত্রোপচারের পর উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের শারীরিক অবস্থার গুরুতর অবনতি হয়েছে। কার্ডিওভাসকুলার সার্জারি করার পর থেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ১৫ এপ্রিল কিম তার দাদার জন্মদিনের অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকায় সন্দেহ করা হয় তার শারীরিক অবস্থা ভালো নেই। উত্তর কোরিয়ার নেতাকে চারদিন আগে একটি সরকারি সভায় দেখা যায়।

দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক ওয়েবসাইট ডেইলি এন জানিয়েছে, ধূমপান, স্থুলতা ও অতিরিক্ত পরিশ্রমের কারণে কয়েক মাস ধরে কিমের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটেছে। সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার এ নেতা কার্ডিওভাসকুলার সার্জারি করান। এরপরেই তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন।

সরকারি সংবাদমাধ্যম ছাড়া কোনও রকম তথ্য উত্তর কোরিয়ার বাইরে বেরতে দেওয়া হয় না৷ কিমকে শেষবার প্রকাশ্যে দেখা গিয়েছিল গত ১১ এপ্রিল৷ নর্থ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা কিম ইল সাং হলেন কিম জং উনের দাদু৷ তাঁর জন্মদিন ১৫ এপ্রিল৷ উত্তর কোরিয়ার কাছে ওই দিনটি বিশেষ ছুটির দিন৷ গোটা দেশেই উত্‍সব পালিত হয়৷ কিমকে সেখানেও দেখা যায়নি৷

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক অনলাইন সংবাদমাধ্যম ‘ডেইলি এনকে’ জানায়, ১২ এপ্রিল কিম জং উনের হৃদযন্ত্রে অস্ত্রোপচার হয়েছে। অতিরিক্ত ধূমপান, মুটিয়ে যাওয়া এবং অধিক পরিশ্রমের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ায় তার হৃদযন্ত্রে এ অস্ত্রোপচার করা হয়। তিনি এখন হিয়াংসান কাউন্টিতে তার ভিলায় বিশ্রাম নিচ্ছেন।

৩৬ বছর বয়সী এ নেতার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায়, তার চিকিৎসায় নিয়োজিত মেডিক্যাল টিমের অধিকাংশ সদস্য ১৯ এপ্রিল পিয়ংইয়ং ফিরে যান। তবে তার সুস্থতা পর্যবেক্ষণের জন্য কয়েকজন সেখানেই রয়ে গেছেন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ এবং গোয়েন্দা বিভাগের পরিচালকের দপ্তর এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

উত্তর কোরিয়ায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকায় দেশটি থেকে কোনো তথ্য বের করা অত্যন্ত কঠিন।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে উত্তর কোরিয়ার ৬০তম জন্মদিনে একই ভাবে কিম জং ইল( কিম জং উনের বাবা) অনুপস্থিত ছিলেন৷ জানা গিয়েছিল তাঁর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ পরে জানা যায়, তাঁর হার্ট অ্যাটাক হয়েছে৷ এরপর ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনি প্রায় শয্যাশায়ী ছিলেন৷পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.